বুধবার, মে ৬, ২০২০

 

ছন্দে ফিরছে নিউইয়র্ক

হাবিবুর রহমান: নিউইয়র্কে মৃত্যুর মিছিলটা না থামলেও গতিটা একটু কমেছে। আর তাতেই যেন খুশী নিউইয়র্কাররা। আরো বেশী খুশী এজন্য যে দোকানপাট ধীরে ধীরে খুলতে শুরু করেছে। লক ডাউনের শুরু থেকেই শাট ডাউন ছিলো নিউইয়র্কারদের প্রিয় কফি হাউজ স্টার বাক্স। গত মঙ্গলবার (৬ মে) থেকে তাদের ঝাঁপ খুলেছে। তবে নিয়ম কানুন কিছুটা পাল্টেছে। আগের মত এক গøাস কফি নিয়ে ল্যাপটপ খুলে ঘন্টার পর ঘন্টা আড্ডা দেয়ার সুযোগ নেই। অন লাইনে অর্ডার দিয়ে শুধু পিক আপ। তারপরও এতেই খুশী নতুন প্রজন্ম। কফি হাতে সোস্যাল দূরত্ব মেনে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে আড্ডার সুযোগ যেবিস্তারিত পড়ুন


শাশুড়ির পর মা-কেও হারালেন কথা সাহিত্যিক ফেরদৌস সাজেদীন

নিউইয়র্ক (ইউএনএ): শাশুড়ি মাকে হারানোর মৃত্যুশোক কাটতে না কাটতেই এক সপ্তাহের মধ্যে জন্মধাত্রী মা-কে হারালেন নিউইয়র্কের বিশিষ্ট কথা সাহিত্যিক ও মুক্তধারা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান কথাসাহিত্যিক ফেরদৌস সাজেদীন। তার মাতা বেগম জাহানারা রইস ৬ মে বুধবার (বাংলাদেশ সময় বিকেল ৫-১০ মিনিট) ঢাকার মডার্ন হাসপাতালে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজেউন)। তার বয়স হয়েছিলো ৮৫ বছর। তিনি নিমোনিয়া সহ নানা রোগে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি পুত্র-কন্যা সহ বহু আতœীয়-স্বজন রেখে গেছেন। উল্লেখ্য, ফেরদৌস সাজেদীনের শ্বাশুড়ি মা সুরাইয়া আহমেদ (৮৫) করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ১ মে সকাল ৮টায় নিউইয়র্কের একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাসবিস্তারিত পড়ুন


করোনায় ফেরদৌস সাজেদীনের শাশুড়ির ইন্তেকাল

নিউইয়র্ক (ইউএনএ): মুক্তধারা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান, বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক ফেরদৌস সাজেদীনের শাশুড়ি সুরাইয়া আহমেদ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেছেন। গত ১ মে শুক্রবার নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ডের উইনথ্রপ হাসপাতালে সকাল ৮টার দিকে তিনি শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন। তার বয়স হয়েছিলো ৮৫ বছর। মৃত্যকালে তিনি তিন কন্যা সহ বহু আতœীয়-স্বজন রেখে গেছেন। খবর ইউএনএ’র। জানা গেছে, গত ৯ এপ্রিল তাকে উইনথ্রপ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। কন্যা মাসুদা সাজেদীন ডলি ও পরিবারের সদস্যরা গত ১০ এপ্রিল শেষবারের মত তাকে হাসপাতালে দেখার সুযোগ পান। ঐদিন রাতেই তাকে ইনটেনসিভ কেয়ারে নিয়ে যাওয়া হয় এবং ১১ এপ্রিল থেকেবিস্তারিত পড়ুন


করোনায় নিউইয়র্কে বাংলাদেশী ব্যবসায়ীর মৃত্যু

নিউইয়র্ক (ইউএনএ): নিউইয়র্কে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এক বাংলাদেশী ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। তার নাম সমীর চন্দ্র দেব। তিনি কমিউনিটির পরিচিত মুখ ও নাট্যশিল্পী, ঢাকা ড্রামার অন্যতম সদস্য প্রতিমা সুমির স্বামী। খবর ইউএনএ’র। জানা গেছে, নিউইয়র্কে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দুই সপ্তাহ মৃত্যুর সাথে লড়াই করে পরাজিত হলেন কমিউনিটির সুপরিচিত নাট্যশিল্পী, ঢাকা ড্রামার অন্যতম সদস্য প্রতিমা সুমির স্বামী ব্যবসায়ী সমীর চন্দ্র দেব। গত ৩ মে রোববার ভোর ৬টায় তিনি ম্যানহাটানস্থ কর্নেল হাসপাতালে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন। প্রতিমা সুমির ঘনিষ্ঠ সর্বজন শ্রদ্ধেয় নাট্যব্যক্তিত্ব রেখা আহমেদ ও বিশিষ্ট সাংবাদিক মনজুর আহমদ সমীরের চন্দ্র দেবের মৃত্যুরবিস্তারিত পড়ুন