বুধবার, অক্টোবর ৩, ২০১৮

 

বাংলাদেশের ৩টি ছাড়াও অংশ নিচ্ছে ৭টি দল

নিউইয়র্কে বাংলাদেশী ব্যান্ড ফেস্টিভ্যাল ৬ অক্টোবর

নিউইয়র্ক (ইউএনএ): নিউইয়র্কে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বাংলাদেশী ব্যান্ড ফেস্টিভ্যাল-২০১৮। আগামী ৬ অক্টোবর শনিবার জ্যামাইকাস্থ ইয়র্ক কলেজের ‘দ্য মিলটন জি. বাসিন’ পারফর্মিং আর্ট সেন্টারে এই ব্যান্ড শো অনুষ্ঠিত হবে। ব্যান্ড দল ওয়ারফেয়ার-এর ২০ বছর পূর্তী উপলক্ষ্যে এই ফেস্টিভ্যাল-এর আয়োজন করা হচ্ছে। এতে বাংলাধের তিনটি ব্যান্ড দল ছাড়াও উত্তর আমেরিকার ৭টি ব্যন্ড দল অংশ নেবে। যৌথভাবে এই ব্যান্ড ফেস্টিভ্যার-এর আয়োজক ওয়ার ফেয়ার ও বিডি সাউন্ড এলএলসি। খবর ইউএনএ’র। আয়োজকরা জানান, বাংলাদেশের জনপ্রিয় তিনটি ব্যন্ড দলও এই ফেস্টিভ্যাল-এ অংশ নেবে। এরা হলো উনিং-এর চন্দন, প্রমিথিউস-এর বিপ্লব এবং ওয়ারফেজ/আরবিআর-এর বাবনা। উত্তর আমেরিকারবিস্তারিত পড়ুন


নিউইয়র্কে চৌদ্দগ্রামের মেয়র মিজান সংবর্ধিত

এস এম সোলায়মান: নিউইয়র্কের ব্রুকলীনে চৌগ্রামের মেয়র মিজানুর রহমাাকে সর্বজনীন সংবর্ধনা দিলেন গ্রেটার কুমিল্লা সমিতি যুক্তরাষ্ট্র ইনক। গত ২৯ সেপ্টেম্বর শনিবার সন্ধ্যায় চার্চ-ম্যাকডোনাল্ড রাধুনী রেষ্টুরেটে অনুষ্ঠিত সম্বর্ধনায় সভাপতিত্ব করেন গ্রেটার কুমিল্লা সমিতির সভাপতি ফিরোজুল আলম পাটোয়ারী। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বঙ্গমাতা পরিষদের সভাপতি ডা. এনামুল হক, মেয়র মিজানুর রহমাননকে ফুল দিয়ে বরণ করেন চৌদ্দগ্রামের কৃতি সন্তান নিউইয়র্কের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, কাজী ফাউন্ডেশনের প্রেসিডেন্ট কাজী এনামুল হক। গ্রেটার কুমিল্লার সাধারণ জাহাঙ্গীর সরকারের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সোসাইটির ট্রাষ্টিবোর্ড মেম্বার আলী ইমাম শিকদার, বাংলাদেশ সোসাইটির নির্বাচনে ‘নয়ন-আলী প্যানেলের সভাপতি পদপ্রার্থী কাজী আশরাফ হোসেন নয়ন,বিস্তারিত পড়ুন


যে কারণে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের বিরোধিতা করছে সম্পাদক পরিষদ

হককথা ডেস্ক: জাতীয় সংসদে সদ্য পাস হওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সংবিধানে প্রদত্ত জনগণের মত প্রকাশের স্বাধীনতা খর্ব হবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিশ্লেষকরা। এটাকে গণমাধ্যম ও মানবাধিকার-কর্মীরা একটি কালো আইন বলে মনে করছে। দেশের বিভিন্ন সংবাদপত্রের সম্পাদকদের নিয়ে গঠিত সংগঠন ‘সম্পাদক পরিষদ’ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের কয়েকটি ধারাকে মৌলিক অধিকার পরিপন্থি বলে মনে করছে। এ আইনের বেশকিছু ত্রুটি-বিচ্যুতি সুনির্দিষ্টভাবে তুলে ধরে বিতর্কিত ধারাগুলো বাতিলের দাবি জানিয়েছে সম্পাদক পরিষদ। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মৌলিক ত্রুটিগুলো হলো- ১. ডিজিটাল যন্ত্রের মাধ্যমে অপরাধ সংঘটন প্রতিহত করা এবং ডিজিটাল অঙ্গনে নিরাপত্তা বিধানের লক্ষ্যে একটি আইন প্রণয়নেরবিস্তারিত পড়ুন