শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী ১৯ জানুয়ারী

ঢাকা: ১৯ জানুয়ারী শুক্রবার মহান স্বাধীনতার ঘোষক, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৮২তম জন্মবার্ষিকী। তিনি ছিলেন বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের প্রবক্তা, বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রতীক। ১৯৩৬ সালের এমনি এক শীতার্ত দিনে তিনি বগুড়ার গাবতলী উপজেলায় বাগবাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন। মাতা-পিতা তখন আদর করে নাম রাখেন কমল। দেশ, মাটি ও মানুষের জন্যে আমৃত্যু নিবেদিতপ্রাণ এই ব্যক্তিত্বের পরিচিতি সর্বজনবিদিত। দূরদর্শী রাষ্ট্রনায়ক, অসাধারণ দেশপ্রেমিক, অসীম সাহসী ও সহজ-সরল ব্যক্তিত্বের প্রতীক হিসেবে জিয়াউর রহমান ইতিহাসে অবিস্মরণীয় হয়ে থাকবেন। তার জন্মদিন পালন উপলক্ষে বিএনপি ও অঙ্গ দল নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠন ব্যাপক কর্মসূচি নিয়েছে। জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে তার কর্মময় জীবনের ওপর সংবাদমাধ্যম বিশেষ ক্রোড়পত্র ও অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে।
এমন একটি দিনে তার জন্মদিন পালন করা হচ্ছে যখন শহীদ জিয়া, তার সহধর্মিনী বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে সরকারের পক্ষ থেকে নানা অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। তাকে রাজনীতি থেকে মাইনাসের চেষ্টা করার পাশাপশি বিএনপিকে ভাঙ্গার ষড়যন্ত্র চলছে। সরকারের রোষানলে পড়ে দলটির সিনিয়র নেতাদের অধিকাংশই মামলায় জর্জরিত। বেগম খালেদা জিয়া নিজেও সপ্তাহে ৩/৪দিন আদালতে হাজিরা দিচ্ছেন। তার বিরুদ্ধে যেনতেনভাবে একটি রায় দেয়ার চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে বিএনপির অবিযোগ।
সূত্র মতে, মহান স্বাধীনতার ঘোষক এবং মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডার ও জেড ফোর্সের প্রধান হিসেবে জিয়াউর রহমান এদেশের মানুষের কাছে প্রথম পরিচিত হলেও পরে তিনি বাংলাদেশের একজন বরেণ্য রাষ্ট্রনায়কে পরিণত হন। খাল কাটার মধ্য দিয়ে তিনি দেশের আর্থ সামাজিক অবস্থার ব্যাপক পরিবর্তন সাধন করেছিলেন। তার সময়ই দেশ অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধশালী হয়ে উঠে। জিয়াউর রহমানই দেশে গার্মেন্টস শিল্পের প্রসার ঘটান। মধ্যপ্রাচ্যসহ বহিঃরাষ্ট্রের সাথে বাংলাদেশকে পরিচয় করিয়ে দেন জিয়াউর রহমানই। তার আমলেই জনশক্তি রফতানির উল্লেখযোগ্য উন্নয়ন ঘটে। আধুনিক বাংলাদেশের স্থপতি হিসেবে তিনি বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের আদর্শের ভিত্তিতে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) গঠনের মধ্য দিয়ে দেশে উন্নয়ন ও উৎপাদনের রাজনীতির সূচনা করেন। বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের নতুন দর্শন উপস্থাপন করেন জিয়াউর রহমান। তিনি ১৯ দফা কর্মসূচি দিয়ে দেশে উন্নয়ন ও উৎপাদনের রাজনীতি এগিয়ে নিয়ে যান। তার প্রতিষ্ঠিত বিএনপি দেশের মানুষের কাছে প্রিয় দল হিসেবে ’৭৯ সালের দ্বিতীয় সংসদ,’ ৯১ সালের ৫ম সংসদ, ৬ষ্ঠ ও ৮ম সংসদ নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠ আসনে বিজয়ী হয়ে সরকার গঠন করে। স্বৈরশাসকের অধীনে অনুষ্ঠিত ’৮৬ সালের তৃতীয় ও ’৮৮ সালের ৪র্থ সংসদ নির্বাচন বিএনপি বর্জন করে।
এছাড়া সর্বশেষ ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারী ক্ষমতাসীন মহাজোটের অধীনে অনুষ্ঠিত একতরফার দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জন করে বিএনপিসহ দেশের অধিকাংশ দল। এই নির্বাচনে ১৫৩টি আসনে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বীই ছিল না। বাকি ১৪৭ আসনের নির্বাচনে সর্বোচ্চ ৫ থেকে ১০ শতাংশ ভোটার উপস্থিতি ছিল বলে বিভিন্ন সংগঠন দাবি করে। নির্দলীয় সরকারের দাবিতে বিএনপির নেতৃত্বাধীন তৎকালীন ১৮ দলীয় জোটসহ অন্যান্য বিরোধী দলও এই নির্বাচন বর্জন করে। একতরফার এই নির্বাচনে সমর্থন জানায়নি দেশী-বিদেশী কোনো সংস্থাই। ভোটারবিহীন সেই নির্বাচনের পর থেকেই বিরোধী জোট দ্রুত সবার অংশগ্রহণে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলন করে আসছে।
কর্মসূচি: বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৮২তম জন্মবার্ষিকী যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনের জন্য নানা কর্মসূচি ঘোষণা করেছে দলটি। এর মধ্যে ১৯ জানুয়ারী শুক্রবার ভোর ৬টায় সারা দেশে দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল সাড়ে ১০টায় শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মাজারে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ ফাতেহা পাঠ ও পুষ্পস্তবক অর্পণ। এছাড়া দিনটি উপলক্ষে বিএনপির উদ্যোগে নানা কর্মসূচি পালিত হচ্ছে। বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে আলোচনা সভার আয়োজন করে বিএনপি। এদিকে জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে জিয়ার মাজার প্রাঙ্গণে আজ স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি পালন করবে ড্যাব। এছাড়া সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত দলের নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প স্থাপন করা হবে। শনিবার রাজধানীতে র‌্যালির আয়োজন করা হয়েছে। দিবসটিতে গরিব দুঃস্থ শীতার্ত মানুষের মাঝে বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হবে। এছাড়া জিয়াউর রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে বিএনপির অঙ্গ সংগঠনগুলো আলোচনা সভা, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, সেমিনার, র‌্যালি, সেম্পোজিয়ামসহ নানা কর্মসূচির পালনের উদ্যোগ নিয়েছে।
নিউইয়র্ক ভিত্তিক বার্তা সংস্থা ইউএনএ জানায়, জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ফোরাম ইউএসএ ২১ জানুয়ারী বোরবার সন্ধ্যা ৭টায় জ্যাকসন হাইটসের নিউ মেজবান রেষ্টুরেন্টে আলোচনা সভার আয়োজন করেছে।






একই ধরনের খবর

  • মঙ্গলবার মহান মে দিবস
  • গজনফর আলী চৌধুরীর ইন্তেকাল
  • নির্বাচন করতে পারবেন না তারেক-জোবাইদা!
  • বিশ্বের নতুন পাঁচ ‘স্বৈরতান্ত্রিক দেশের তালিকায়’ বাংলাদেশ
  • সাতই মার্চের দিন ঢাকায় সিরিজ শ্লীলতাহানির ঘটনায় তোলপাড়
  • ঐতিহাসিক সাতই মার্চ বুধবার : ইউনেস্কোর স্বীকৃতিতে দিনটির গুরুত্ব বেড়েছে
  • এপ্রিলে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা থেকে মহাকাশে উড়বে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট
  • ড. জাফর ইকবালের চিকিৎসায় মেডিক্যাল বোর্ড গঠন, নেয়া হচ্ছে ঢাকায়
  • Shares