রোববার নিউইয়র্কে রুনা-সাবিনা’র লাইভ কনসার্ট : ‘এক সাথে গান নয়, এবার যৌথ নাচ হবে’

সালাহউদ্দিন আহমেদ: নিউইয়র্কে দ্বিতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ তথা উপমহাদেশের দুই কিংবদন্তী শিল্পী রুনা লায়লা ও সাবিনা ইয়াসমীনের ‘রুনা-সাবিনা’ লাইভ কনসার্ট। আগামী ১৫ অক্টোবর রোববার সন্ধ্যা ৭টায় নিউইয়র্কের জ্যামাইকাস্থ ইয়র্ক কলেজ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিতব্য এই কনসার্টের আয়োজক হচ্ছে শো টাইম মিউজিক। এই নিয়ে নিউইয়র্কে দ্বিতীয়বারের মতো শিল্পী রুনা লায়লা ও সাবিনা ইয়াসমীনের ‘রুনা-সাবিনা’ লাইভ কনসার্ট অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। খবর  ইউএনএ’র।
‘রুনা-সাবিনা’ লাইভ কনসার্ট উপলক্ষে ১০ অক্টোবর মঙ্গলবার অপরাহ্নে নিউইয়র্কের গুলশান ট্যারেসে আয়োজিত শিল্পীদ্বয়ের উপস্থিতিতে এক সাংবাদিক সম্মেলনে আয়োজক প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার আলমগীর খান আলম কনসার্টের প্রস্তুতি তুলে ধরেন। এসময় আলম বলেন, প্রবাসের রুনা লায়লা আর সাবিনা ইয়াসমীনের ভক্তদের চাহিদার জন্যই দ্বিতীয়বারের মতো তাদের লাইভ কনসার্ট আয়োজন করা হচ্ছে। অনুষ্ঠানের সকল প্রস্তুতিও সম্পন্ন হয়েছে এবং অর্ধেক টিকিট ইতিমধ্যেই সোল্ড হয়ে গেছে। বাকী টিকিট অনুষ্ঠানের আগেই শেষ হয়ে যাবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। অনুষ্ঠানটি পুরোপুরি সফল করতে আলমগীর খান আলম সবার সহযোগিতা কামনা এবং সময়মতো অনুষ্ঠান শুরু করতে দর্শক-শ্রোতাদের সন্ধ্যা টায় মিলনায়তনে প্রবেশ করার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, রোববার সন্ধ্যা ৭টায় অনুষ্ঠান শুরু হবে এবং ৬টায় মিলনায়তনের গেট খুলে দেয়া হবে। তিনি বলেন, সকল টিকিটেই নাম্বার থাকবে। আর আসন ব্যবস্থায় শৃঙ্খলার স্বার্থে শিশুদের জন্য টিকিট ক্রয় করতে হবে। তিনি বলেন, আসন নিয়ে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটুক তা চাই না। প্রসঙ্গত আলম বলেন, আমরা জানিনা, আগামী দিনে আমরা এই দুই শিল্পীকে নিয়ে এক সাথে এক মঞ্চে অনুষ্ঠান করতে পারবো কিনা, সেই সুযোগ আর আসবে কিনা। তাই ‘রুনা-সাবিনা’ ভক্তদের জন্য রোববারের লাইভ কনসার্ট অনেক গুরুত্বপূর্ণ।
এরপর শিল্পী সাবিনা ইয়াসমীন ও রুনা লায়লা সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন এবং রোববারের অনুষ্ঠান অরো সুন্দর হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
সাবিনা ইয়াসমীন বলেন, আমরা এর আগেও এই নিউইয়র্কে এক মঞ্চে গান গেয়েছি, আবারো গান করবো। গতবারের অনুষ্ঠান ভালো হয়েছে, রোববারের অনুষ্ঠানও ভালো হবে বলে আশা করছি। এজন্য সবার সহযোগিতা চাই।
রুনা লায়লা তার বক্তব্যে সবার সহযোগিতায় অনুষ্ঠান স্বার্থক হবে, সুন্দর হবে বলে প্রত্যাশা করেন।
সাংবাদিক সম্মেলনে অনুষ্ঠানের পৃষ্ঠপোষকদের মধ্যে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শাহ নেওয়াজ, আহসান হাবীব, আমজাদ হোসেন সেলিম ও বিলাল আহমেদ চৌধুরী এবং বাংলাদেশ সোসাইটি ইনক’র সাহিত্য সম্পাদক আহসান হাবিব সংক্ষিপ্ত শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন। সাংবাদিক সম্মেলনে বিশিষ্ট তবলা বাদক চন্দন দত্ত ও জাহিদ হাসান সহ প্রবাসের জনপ্রিয় শিল্পী রনো নেওয়াজ উপস্থিত ছিলেন।
পরে শিল্পীদ্বয় উপস্থিত সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। এসময় এক প্রশ্নের উত্তরে রুনা লায়লা বলেন, শুধু বাংলাদেশ নয়, উপমহাদেশের সঙ্গীত জগতেই পরিবর্তন আসছে। তারপরও সঙ্গীত জগতে ভালো কাজ হচ্ছে, নতুন শিল্পী আসছে, ভালো গান হচ্ছে। তবে ক্লাসিক আর ফোক গান যেনো থাকে। কোন শিল্পীকে এগিয়ে যাওয়ার জন্য ক্লাসিক আর ফোক গান জরুরী। পাশাপাশি ভাল ওস্তাদ দরকার। শিল্পী হতে হলে ‘প্রোপার ওয়ে’-তে এগুতে হবে। আমি চাই আমার চেয়ে ‘বেটার সিঙ্গার’ বেড়িয়ে আসুক।
একই প্রশ্নের উত্তরে সাবিনা ইয়াসমীন বলেন, যুগের সাথে সাথে সবকিছুরই পরিবর্তন হচ্ছে। আগের দিনের তুলনায় এখন সুন্দর গান, সামাজিক ছবি কম হচ্ছে। ভাল গান কমে যাচ্ছে। তিনি বলেন, প্রয়োজনের তাগিদেই মিষ্টি গান এসেছে। আর দর্শক-শ্রোতা যেমন গান চাইবেন, তেমনী গান হবে। তবে আমাদের ভাল শিক্ষকের অভাব রয়েছে। আমরা আশাবাদী ভালো গান আসবে, ভালো গান হবে।
অপর এক প্রশ্নের উত্তরে রুনা লায়লা বলেন, আমরা ভালো গান গাইতে পারলেই যে, ভালো শিক্ষক হবো তা নয়।
সাবিনা ইয়াসমীন বলেন, পরিকল্পনা করা শিল্পীদের কাজ নয়। শিল্পীরা দেশের জন্য গাইবে, দেশকে রিপ্রেজন্ট করবে।
অপর এক প্রশ্নের উত্তরে রুনা-সাবিনা হাস্যোজ্জল মুখে বলেন, এবার এক সাথে গান গাইবো না, এক সাথে নাচবো।






একই ধরনের খবর

  • ‘তাহসান লাইভ ইন নিউইয়র্ক’ কনসার্ট ২৯ জুলাই
  • অনিন্দ্য সৌন্দর্য মহিমায় এক্সেলসিয়র সিলেট যেন ঐশ্বরিক স্বপ্নপুরি : কবি আল মুজাহিদী
  • ‘এই সম্মান আমার কাজকে আরো এগিয়ে নিয়ে যাবে, যোগ্য শিল্পী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করবে’
  • বিশ্ব সঙ্গীত দিবস ২১ জুন
  • বাংলাদেশ আমার সেকেন্ড হোম
  • বাংলাদেশের মতো আতিথিয়তা আর কোথাও পাইনি
  • নিউইয়র্কে প্রথম একক সঙ্গীত সন্ধ্যায় দর্শক মাতালেন শিল্পী রানো নেওয়াজ
  • Shares