রমজান শুরু : মসজিদে মসজিদে ব্যাপক নিরাপত্তা : বিভিন্ন রেষ্টুরেন্টে ইফতার বক্সের মূল্য ৬-১২ ডলার 

হককথা ডেস্ক: নিউইয়র্ক সহ উত্তর আমেরিকায় সোমবার (৬ মে) থেকে পবিত্র রমজান শুরু হয়েছে। ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের অন্যতম রহমত, মাগফিরাত আর বরকতের মাস হিসেবে পরিচিত রমজানের আগমন ঘিরে উত্তর আমেরিকার মুসলিম কমিউনিটির ঘরে ঘরে এবং মসজিদ আর ইসলামিক সেন্টারগুলোতে নেয়া হয়েছে প্রস্তুতি আর আয়োজন। পাশাপাশি ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে মসজিদগুলোতে। সেই সথে গ্রোসারী স্টোগুলোতেও রমজান মাসের আকর্ষনীয় ও চাহিদাপূর্ণ জিনিসপত্র মজুত করা হচ্ছে। রমজান উপলক্ষ্যে নিউইয়র্কের রেষ্টুরেন্টগুলোতে ৬ থেকে ১২ ডলারের মধ্যেই ইফতারী বক্স পাওয়া যাবে বলে সংশ্লিস্ট সূত্রে জানা গেছে। নিউইয়র্কের বিভিন্ন মসজিদ ও ইসলামিক সেন্টারগুলোতে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট মসজিদ পরিচালনা কমিটি নানা প্রস্তুতি গ্রহণ করেছেন। ইতিমধ্যেই কোন কোন মসজিদের পক্ষ থেকে রমজান মাসের ক্যালেন্ডার বিশেষ করে সেহরী-ইফতার ও নামাজের সময় সূচী সন্নিবেশিত করে ফ্রি প্রচার করা হচ্ছে। মসজিদে মসজিদে তারাবিহ নামাজের আয়োজন করা হয়েছে। তারাবিহ নামাজে কোরআন খতমের লক্ষ্যে নিয়োগ করা হচ্ছে পবিত্র কোরআন মুখস্তকারী হাফেজ। আবার কোন কোন মসজিদে সুরা তারাবিহ পড়া হবে বলে তারও প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। পাশাপশি মুসল্লীদের নিরাপত্তার বিষয়টি সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে এব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে স্থানীয় পুলিশ প্রিসেঙ্কটগুলোর সাথে যোগাযোগ করে তারও ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
প্রবাসী বাংলাদেশীদের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত ও পরিচালিত ম্যানহাটানের মদিনা মসজিদ, জ্যামাইকার জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টার, আল আরাফা ইসলামিক সেন্টার, মসজিদ মিশন (হাজি ক্যাম্প), দারুস সালাম মসজিদ, ইকনা, ব্রকলীনের বাংলাদেশ মুসলিম সেন্টার, বায়তুল জান্নাহ জামে মসজিদ, ওজনপার্কের আল আমান জামে মসজিদ, জ্যাকসন হাইটসের জ্যাকসন হাইটস জামে মসজিদ, এস্টোরিয়ার আর আমীন ইসলামিক সেন্টার, শাহজালাল মসজিদ, গাউসিয়া মসজিদ, ব্রঙ্কসের বাংলা বাজার জামে মসজিদ, পার্কচেষ্টার জামে মসজিদ ও ইসলামিক সেন্টার প্রভৃতি মসজিদ সূত্রে জানা গেছে এসব মসজিদগুলোতে রমজান মাস আগমন উপলক্ষ্যে বিস্তারিত কর্মসূচী ও প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। এসব মসজিদে তারাবিহ নামাজ আদায় করা হবে।
ব্রঙ্কসের পার্কচেষ্টার জামে মসজিদে গত শুক্রবার জুম্মার নামাজের পর কর্মকর্তা ও বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ
অপরদিকে জ্যমাইকা, জ্যাকসন হাইটস, ওজন পার্ক, এস্টোরিয়া, ব্রুকলীন, ব্রঙ্কস প্রভৃতি বাংলাদেশী অধ্যুষিত এলাকার বাংলাদেশী মালিকানাধীন গ্রোসারীগুলোতে চলছে রমজানের বিশেষ বিশেষ সমাগ্রী মুজতকরণ। বিশেষ করে বুট-মুড়ি, ছোলা, পিয়াজসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী আমদানী করা হচ্ছে। বাংলাদেশ থেকে আমদানী হচ্ছে মুড়ি সহ ছোলা বুট। ভারত, পাকিস্তান, থাইল্যান্ড, মায়ানমার থেকেও আসছে বিভিন্ন সামগ্রী। অনেক স্টোরে মুড়ি সেল দেয়া হয়েছে বলে ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন।
সেই সাথে রেষ্টুরেন্টগুলোতেও চলছে ইফতার সামগ্রীর নানা প্রস্তুতি। বরাবরের মতো ইফতার সমগ্রীর মধ্যে থাকছে খেজুর, ছোলা বুট, পিয়াজো, বেগুনী, জিলাপি, বিরিয়ানী, খিচুরী, হালিম প্রভৃতি।
জ্যামাইকার সাগর রেষ্টুরেন্ট ও সাগর চাইনিজ-এও ইফতারি বক্স পাওয়া যাবে। এছাড়াও সাগর চাইনিজ-এর জ্যাকসন হাইটস শাখাতেও ইফতারী বক্স পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির স্বত্তাধিকারী সামিউর রহমান।
জ্যামাইকার ঘরোয়া রেষ্টুরেন্টে ৫.৯৯ ডলার থেকে ১১.৯৯ ডলারে পৃথক পৃথক আইটেমে ইফতারীর প্যাকেজ পাওয়া যাবে বলে জানা গেছে।
জাকসন হাইটেসর হাটবাজার রেষ্টুরেন্টের অন্যতম স্বত্তাধিকারী মহিসন ননী জানান, গত বছেরর মতো এবারও কমপক্ষে ১৬ আইেটেমর ইফতারী বক্সের মূল্য ধরা হয়েছ ৭.৯৯ ডলার। এছাড়া থাকেব হালিমের পাশাপািশ চিকেন ও বিফ হালিম, ফ্রাইড চিকেন, ৬ রকেমর জিলাপি, পাতলা খিচুরি এবং শরবত। সবকিছু তরতাজা হিসেবে পাবেন রোজাদাররা।
জ্যাকসন হাইটসের তিতাস রেষ্টুরেন্টে (কাবাব এন্ড গ্রীল) ইফতারী বক্স ছাড়াও পবিত্র রমজান মাস জুড়ে ৭৫ থেকে ১০০ জনের বসার ব্যবস্থায় ইফতার সহ সব ধরনের পার্টি এবং সুলভে সুস্বাদু খাবারে ব্যবস্থা থাকবে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির স্বত্তাধিকারী আবুল ফজল দিদারুল ইসলাম। তিনি জানান, তাদের ইফতরীতে থাকবে কমপক্ষে ১৮ আইটেম। ইফতারী বক্সের মূল্য থাকবে ৭.৯৯ ডলার। আর থাকবে বিভিন্ন ধরেনর কাবাব, বিরিয়নী, খিচুরি এবং হািলম সহ মজার খাবার। এছাড়াও রোজাদারদের জন্য থাকবে বিশেষ ডিসকাউন্ট।
পবিত্র রমজান মাসে খাবার বাড়ী রেষ্টুরেন্ট এন্ড সুইটস-এ পাওয়া যাবে স্পেশাল ইফতার বক্স। এতে থাকবে জিলাপি, শাহী হালিম সহ হরেক রকমের খাবার।
ব্রঙ্কসের খলিল বিরিয়ানী হাউজ ও খলিল হালাল চাইনিজ-এর স্বত্তাধিকারী খলিলুর রহমান জানান, পবিত্র রমজান মাসে ১৪ আইটেেেমর ইফতারী বক্সের মূল্য থাকবে ৬.৯৯ থেকে ৭.৯৯ ডলার। রমজানে থাকবে স্বাস্থ্য সম্মত স্পেশাল ক্যাটারিং। তিনি জানান, গ্রাহকদের সুবিধার্থে পার্টি হল চালু করা হয়েছে। উপরে-নীচে মিলে ১৫০জন পার্টি হলে বসার সুযোগ রয়েছে।
ব্রঙ্কসের আল আসকা রেষ্টুরেন্টের ব্যবস্থাপক আলী হায়দার জানান গত বছরের মতো এবারো মুখরোচক নানা আইটেমে ইফতারী বক্স থাকবে। আমাদের রয়েছে ইফতারীর পার্টির ব্যবস্থা। এতে ১০০ থেকে ১৫০ জন অংশ নিতে পারবেন। আগে আসলে আগে পাবেন ভিত্তিতে বুকিং নেয়া হচ্ছে।
এস্টোরিয়ার আলাদীন রেষ্টুরেন্টে ইফতারীর বক্সের মূল্য লাখা হয়েছে ৬ ডলার। এতে থাকবে স্পেশাল আইটেম। আয়োজন থাকবে ষ্পেশাল হালিম সহ নানান রকমের জিলাপি।
এস্টোরিয়ার বৈশাখী রেষ্টুরেন্ট সূত্রে জানা গেছে, এখানে রমজান মাসে ১২ আইটেমের উপরের ইফতারী বক্সের মূল্য থাকবে ৬ ডলার। এবার ইফতারীতে বিশেষ আকর্ষণ থাকবে ঢাকার চকবাজারের ঐতিহ্যবাহী ইফতার সমাগ্রীর আদলে ইফতার সামগ্রী তৈরী। কাস্টমারদের চাহিদা থাকলে প্রয়োজনে সেহরীরও ব্যবস্থা থাকবে।
ব্রুকলীনে চার্চ-ম্যাকডোনাল্ডে আব্দুল্লাহ সুইটস এন্ড রেস্টুরেন্টে ১৬ আইটেমের ইফতারি বক্সের মূল্য ধার্য করা হয়েছে ৫.৯৯ ডলার। এই রেস্টুরেন্টের মালিক আব্দুল্লাহ সুলতান জানান, অন্যবারের মত এবারও বিভিন্ন মসজিদ, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন এবং পারিবারিক ইফতার মাহফিলের জন্যে বিশেষ ডিসকাউন্টে ক্যাটারিংয়ের ব্যবস্থা রয়েছে।
এদিকে নিউইয়র্কে বাংলাদেশীদের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত ও পরিচালিত জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টার (জেএমসি) সূত্রে জানা গেছে, পবিত্র রমজান মাসে জেএমসিতে তারাবিহ নামাজ পবিত্র কোরআন খতম করা হবে। এজন্য তিনজন হাফেজ মনোনীত করা হয়েছে। তারা হলেন জেএমসি পরিচালিত হাফিজিয়া মাদ্রাসার প্রিন্সপাল হাফেজ মুজাহিদুল ইসলাম, হাফেজ জুনায়েদ আহমেদ এবং হাফেজ তৈয়মুর খান। অপরদিকে সামার ক্লাশেরও বিশেষ প্রস্তুতি চলছে।
জেএমসি পরিচালনা কমিটির সেক্রেটারী মনজুর আহমেদ চৌধুরী আরো জানান, পবিত্র রমজান মাসে যাতে নির্বিঘেœ মুসল্লীরা তারাবিহ সহ ৫ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করতে পারেন তার জন্য জেএমসিতে বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। মুসল্লিদের নিরপত্তার বিষয়টি ওয়ান পুলিশ প্লাজায় অবহিত করা হয়েছে এবং পুলিশ বিভাগের সাথে বৈঠক ও মতবিনিময় করা হয়েছে। নামাজের সময় সিটি পুলিশের বিশেষ টহল থাকবে জেএমসি এলাকায়। পাশাপাশি জেএমসি’র নিজস্ব নিরাপত্তা কর্মীও থাকবে। তারা তারাবিহ নামাজের সময় মসজিদ প্রাঙ্গণে টহল দেবেন। রমজান মাসে প্রতিদিন রাত পৌনে ১০টায় তারাবিহ নামাজ শুরু হবে। এছাড়াও একজন সার্বক্ষনিক সিসি ক্যামেরা মনিটর করবে। তিনি জানান, রমজান মাসে প্রতিদিন জেএমসিতে মুসল্লিদের জন্য ইফতারির ব্যবস্থা থাকবে।
জ্যামাইকার মসজিদ মিশন সেন্টার (হাজি ক্যাম্প মসজিদ) সূত্রে জানা গেছে, পবিত্র রমজান মাসে এই মসজিদেও তারাবিহ নামাজে পবিত্র কোরআন খতম করা হবে। এজন্য দু’জন হাফেজ মনোনীত করা হয়েছে। এরা হলেন হাফেজ তানভির ও হাফেজ আকিব। এছাড়াও রমজান মাস জুড়ে প্রতিদিন বাদ আসর কোরআন-হাদিস নিয়ে আলোচনা হবে। এতে মসজিদ মিশনের ইমাম মওলানা মনজুরুল করীম সহ অন্যান্য আলেমগণ বক্তব্য রাখবেন। সেই সাথে প্রতিদিন ইফতারীর ব্যবস্থা থাকবে।(বাংলা পত্রিকা)






একই ধরনের খবর

  • ৯/১১ : কী ঘটেছিল সেদিন
  • নাইন ইলেভেন : সন্ত্রাসী হামলার আতঙ্ক এখনো কাটেনি
  • ভয়াল ৯/১১ বুধবার
  • ‘এ-এইচ ১৬ ড্রিম ফাউন্ডেশন’র স্কুল সাপ্লাই বিতরণ
  • বাংলাদেশ সোসাইটি ভবনে ৮৬ হাজার ডলারের লীন : বাড়ী হাত ছাড়া হওয়ার আশংকা
  • লাগোর্ডিয়া ম্যারিয়ট ফোবানা কনভেনশনে ঐক্যের আহবান : ২০২০ সালের সম্মেলন মন্ট্রিয়ল
  • সাড়ে ৩ লাখ ডলারের বাজেট ঘাটতি: নাউাউ কলোসিয়ামে ফোবানা : দর্শক-শ্রোতাদের উপস্থিতি ছিল কম : যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশীদের নতুন ইতিহাস
  • নিউইয়র্কে গুলি ও গাড়িচাপায় দুই বাংলাদেশী নিহত
  • Shares