যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন-২০২০

ট্রাম্প-বাইডেনের চূড়ান্ত লড়াই : নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন বার্নি স্যান্ডার্স

হককথা ডেস্ক: নভেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন-২০২০ থেকে সড়ে দাঁড়ালের আলোচিত প্রার্থী বার্ণি সেন্ডার্স। ডেমেক্র্যাটিক পার্টির প্রার্থী জোসেফ আর বাইডেন জুনিয়র এবং প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মধ্যে সাধারণ নির্বাচনের পথ সুগম করে তার প্রেসিডেন্ট পদের প্রার্থিতা তুলে নিয়েছেন ভার্মন্টের সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্স। গত ৮ এপ্রিল বুধবার এক সরাসরি সম্প্রচারিত বক্তৃতায়, মি. স্যান্ডার্স স্পষ্টভাবে, তবে তার বৈশিষ্ট্যযুক্ত স্পার্ক ছাড়াই করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে ব্যাপক লড়াইয়ে তার অংশগ্রহণের সিদ্ধান্তটি ঘোষণা করেন। করোনাভাইরাস সঙ্কটের এই সময়ে সাম্প্রতিক দিনগুলোতে নির্বাচনী প্রচারে সুবিধা করতে পারেননি ডেমোক্র্যাট দল থেকে লড়া প্রার্থী স্যান্ডার্স। বুধবার তিনি তার প্রচার কর্মকর্তাদেরকে একটি কনফারেন্স কলে নির্বাচনী প্রচার বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রথম জানিয়েছেন। এরপর অনলাইন লাইভে সমর্থকদের উদ্দেশে বক্তব্যও রাখেন স্যান্ডার্স। নভেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। স্যান্ডার্স সরে দাঁড়ানোয় এখন প্রেসিডেন্ট পদে মনোনয়ন পাওয়ার পথ প্রশস্ত হল সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের।
স্যান্ডার্স এর আগে ডেমোক্র্যাটিক প্রার্থী মনোনয়ন প্রক্রিয়ার শেষ পর্যন্ত লড়ে যাওয়ার ঘোষণা দিলেও এখন তা না করেই নিজেই সরে আসায় আপাতত: ডেমোক্র্যাট দলে জো বাইডেনের আর কোনো প্রতিদ্ব›দ্বী থাকল না। ৭৮ বছর বয়সী ভারমন্টের সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্স গতবারের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনেও লড়েছিলেন। তবে হিলারি ক্লিনটনের কাছে পরাজিত হয়ে আর মনোনয়ন পাননি। এবার বেশ ভালোই লড়াই করছিলেন স্যান্ডার্স। আইওয়া ও নিউ হ্যাম্পশায়ারে চমক দেখিয়েছিলেন তিনি। ফেব্রæয়ারীতেও তিনটি রাজ্যের ভোটে তিনি ভাল ফল করেছিলেন। তবে নির্বাচনী লড়াইয়ে অনেক দিন ধরে সামনের সারিতে থাকলেও স¤প্রতি কয়েক সপ্তাহে দলের প্রাইমারিগুলোতে জো বাইডেনের পেছনে পড়ে যান স্যান্ডার্স। গত ১৭ মার্চ ফ্লোরিডা, অ্যারিজোনা এবং ইলিনয়ের প্রাইমারীতে জো বাইডেন বেশ ভাল ফল করেন। বাইডেনের এ জোয়ারে অনেকটা চাপে পড়ে নির্বাচনী লড়াইয়ে ক্ষ্যান্ত দিলেন স্যান্ডার্স।
এদিকে করোনাভাইরাস সঙ্কটের মধ্যে স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বেগের কারণে এই কয়েক সপ্তাহে স্যান্ডার্স অনলাইনে সরাসরি নির্বাচনী প্রচার চালিয়ে আসছিলেন। তাছাড়া, করোনাভাইরাসের কারণে অনেক রাজ্যের প্রাইমারিতে বিলম্বও হচ্ছে। এ পরিস্থিতিতেই রিপাবলিকান প্রার্থী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে চ্যালেঞ্জ জানাতে স্যান্ডার্স নিজে সরে গিয়ে জো বাইডেনকে এগিয়ে দিলেন।
গত নির্বাচনের সময় বার্ণি স্যান্ডার্স আকর্ষণ করতে পেরেছিলেন তরুণ ভোটারদের। আমেরিকানদের মধ্যে ধনী-গরিবের পার্থক্য এবং উচ্চ ও মধ্যবিত্তের আয় বৈষম্য নিয়ে স্যান্ডার্সের বক্তব্য তরুণ ডেমোক্র্যাট ভোটারদের আকৃষ্ট করেছে। কিন্তু দক্ষিণের রাজ্যগুলোর ডেমোক্র্যাটিক প্রাইমারী নির্বাচনগুলোতে তিনি গুরুত্বপূর্ণ আফ্রিকান-আমেরিকান ভোটারদের সমর্থন লাভ করতে পারেননি। সূত্র: নিউইয়র্ক টাইমস ও রয়টার্স।






একই ধরনের খবর

  • যুক্তরাষ্ট্র প্রেসিডেন্ট নির্বাচন-২০২০ : আজ থেকে ককাস-প্রাইমারি: বার্নি এগিয়ে : ৩ নভেম্বর চুড়ান্ত ভোট * ২১ জানুয়ারী অভিষেক
  • নিউইয়র্কের মেয়র ব্লাজিও প্রার্থী
  • বুড়ো বয়সে ভিমরতি! সহকর্মীকে চুমু খেয়ে বিপদে বাইডেন
  • পরাজয়ের কারণ কোমি : হিলারি
  • পর্যালোচনা : যেকারণে হিলারির পরাজয়
  • আপনি জানেন কি? ডেমোক্রেটদের দুর্গ নিউইয়র্কে আপনার প্রতিবেশী কার পক্ষে ভোট দিয়েছেন!
  • হোয়াইট হাউসে ওবামা-ট্রাম্প প্রথম বৈঠক
  • Shares