বিশ্ব সঙ্গীত দিবস ২১ জুন

হককথা ডেস্ক: ২১ জুন বিশ্ব সঙ্গীত দিবস। বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১১০টি দেশে বর্ণিল সব আয়োজনের মধ্য দিয়ে দিনটি পালন করা হচ্ছে। ছোট-বড় মিলিয়ে, বিশ্বে অন্তত হাজার খানেক কনসার্টের আয়োজন করা হয়েছে দিনটিকে ঘিরে। ফ্রান্সের মিউজিক ফেস্টিভ্যাল এমনই এক আয়োজন। বহু বছর ধরে ঐতিহ্যবাহী এ আয়োজন চলে আসছে দেশটিতে। বস্তত, মিউজিক ফেস্টিভ্যালের এই আয়োজনটিই ১৯৮২ সালে ‘ওয়ার্ল্ড মিউজিক ডে’-তে রূপ নেয়। গান হতে হবে মুক্ত; সংশয়হীন- এই শ্লোগানকে সামনে রেখেই বিশ্বের ১১০টি দেশ যোগ দেয় এই আন্দোলনে। ১৯ বছরের পথ পরিক্রমায় আন্তর্জাতিক মাত্রা পায় এটি। আর বিশ্বের বিভিন্ন দেশে, স্থানীয়ভাবে অথবা ফরাসী দূতাবাসের সহায়তায় জুনের ২১ তারিখে পালন করা হয় ‘ওয়ার্ল্ড মিউজিক ডে’। ফরাসী ভাষায় ফেট ডে লা মিউজিক-আর বাংলায় বিশ্ব সঙ্গীত দিবস। সঙ্গীত মানে না কোনো কাঁটাতারের বেড়া। ভাল গান যে কোনো সংবেদনশীল মানুষের মন ছুঁয়ে যায়, তা সে হোক না যে কোন ভাষার গান।
প্রতিবছরের মতো এ বছরও বাংলাদেশে দিনটি উদযাপিত হচ্ছে। ‘সঙ্গীত নেই তো সভ্যতাও নেই’ স্লোগানে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ও বাংলাদেশ সঙ্গীত সংগঠন সমন্বয় পরিষদ যৌথভাবে দিবসটি উদযাপন করছে।
জাতীয় নাট্যশালার সেমিনার কক্ষে বিকেল ৪টায় উদ্বোধনী সঙ্গীতের মধ্য দিয়ে বিশ্বসঙ্গীত দিবসের এ বছরের কার্যক্রম শুরু হবে। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন অধ্যাপক আফসার আহমেদ। প্রধান অতিথি থাকবেন অধ্যাপক করুণাময় গোস্বামী।
ভাল লিরিক আর সুর ছুঁয়ে যায় যে কোনো সংবেদনশীল মানুষের মন, তা সে হোক না যে কোনো ভাষার গান। বিশ্ব সঙ্গীত দিবসের এই আয়োজন সে কথাই মনে করিয়ে দেয়। বিশ্ব সঙ্গীত দিবসে সুরের মুর্ছনায় আন্দোলিত হোক প্রতিটি হৃদয়।
বিশ্ব সঙ্গীত দিবসে শিল্পকলায় বর্ণাঢ্য আয়োজন: বিশ্ব সঙ্গীত দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি হাতে নিয়েছে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানমালা। যার মধ্যে রয়েছে- উদ্বোধনী পর্ব, আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। ২১ জুন সন্ধ্যা ৬টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার সামনে বেলুন উড়িয়ে বিশ্ব সঙ্গীত দিবসের উদ্বোধনের পাশাপাশি জাতীয় নাট্যশালার লবিতে রয়েছে শিল্পী তিমির নন্দীর পিয়ানো বাদন ও বিশিষ্ট শিল্পীদের মিলনমেলা।
জাতীয় নাট্যশালা মিলনায়তনে আলোচনা পর্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির সচিব জাহাঙ্গীর হোসেন চৌধুরীর সভাপতিত্বে আলোচক হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিশিষ্ট শিল্পী মোস্তফা জামান আব্বাসি, মমতাজ বেগম, এন্ড্রু কিশোর, গাজী আব্দুল হাকিম, আইয়ুব বাচ্চু, সুজিত মোস্তাফা, রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা।
আলোচনা শেষে সাংস্কৃতিক পর্বে শিল্পী চন্দন দত্ত-এর পরিচালনায় সমবেত যন্ত্রসঙ্গীত পরিবেশন করবে বাংলাদেশ যন্ত্রশিল্পী ফোরাম, একক বেহালা বাদন-শিল্পী রূপসী মমতাজ, সমবেত সঙ্গীত- বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি শিশু দল, শিশু একাডেমি ও সরকারী সংগীত মহাবিদ্যালয়। ব্যান্ড সংগীত পরিবেশনায়-জলের গান ও গান পাগল। অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় থাকবে আনিকা ফারিহা।






একই ধরনের খবর

  • বাংলাদেশ আমার সেকেন্ড হোম
  • বাংলাদেশের মতো আতিথিয়তা আর কোথাও পাইনি
  • নিউইয়র্কে প্রথম একক সঙ্গীত সন্ধ্যায় দর্শক মাতালেন শিল্পী রানো নেওয়াজ
  • রোববার নিউইয়র্কে রুনা-সাবিনা’র লাইভ কনসার্ট : ‘এক সাথে গান নয়, এবার যৌথ নাচ হবে’
  • জমজমাট আয়োজনে নিউইয়র্কে জেমিনি স্টার মিউজিক অ্যাওয়ার্ড-২০১৭ অনুষ্ঠিত
  • মহানায়কের মহাপ্রস্থান
  • যৌথ প্রযোজনার নামে যা হয়েছে তা অবশ্যই প্রতারণা: আহমদ শরীফ
  • Shares