বিপিএল-২০১৯ : ঢাকা গ্লাডিয়েটর্স চ্যাম্পিয়ন : ঢাকা ভাইপার্স রানার্স আপ

হককথা ডেস্ক: বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল)-এ এবার ঢাকা গ্লাডিয়েটর্স অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন আর ঢাকা ভাইপার্স রানার্স আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে। রোববার কুইন্সের স্প্রীংফিল্ডের ইডলীউইল ক্রিকেট গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত ফাইনাল খেলায় ঢাকা গ্লাডিয়েটর্স ৬ উইকেটে ঢাকা ভাইপার্সকে পরাজিত করে জয়লাভ করে।
রোববারের শীতল হাওয়া আর রৌদ্রজ্জল আবহাওয়ায় বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ফাইনাল খেলা শুরু হয়। শুরুতই টসে জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় ঢাকা ভাইপার্স। খেলায় দলটি ২০০ রানের টার্গেটে মাঠে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটের বিনিময়ে ১৩৬ রান সংগ্রহ করে। জবাবে ঢাকা গ্লাডিয়েটর্স ৪ উইকেটে ১৬ ওভারে প্রয়োজনীয় ১৩৭ রান সংগ্রহ করে চ্যাম্পিয়ন হয়। এবারের বিপিএল-এ ঢাকা গ্লাডিয়েটর্স-এর রাবি ইন্দার সিং মেহেরা ৩০২ রান সংগ্রহ করে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারীর মর্যাদা লাভ করে। এই রানের মধ্যে একটি সেঞ্চুরী সহ ৩টি অর্ধ সেঞ্চুরী রয়েছে। অপরদিকে দ্বিতীয় সর্বচ্চো রান সংগ্রহকারীর মর্যাদা লাভ করেন ঢাকা ভাইপার্স-এর মাসুদ হক। তিনি একটি সেঞ্চুরী ও একটি অর্ধ সেঞ্চুরী সহ ২০৪ রান সংগ্রহ করেন। অপরদিকে ঢাকা গ্লাডিয়েটর্স-এর সার্বজিৎ সিং লাড্ডা ৭ ম্যাচে ২৭ ওভার বলে ১২৫ রান দিয়ে ১৫টি ইউকেট নিয়ে সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রৃকারীর মর্যাদা লাভ করেন। তিনি ফাইনালে ম্যান অব দ্য ম্যাচের মর্যাদাও লাভ করেন।
খেলা শেষে অপরাহ্নে বিপিএল ইউএসএ’র সভাপতি সুমন খানের সভাপতিত্বে আয়োজিত পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন রাষ্ট্রদূত মাসদি বিন মোমেন। এছাড়াও আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন উৎসব.কম-এর সিইও রায়হান জামান, বাংলা পত্রিকা’র সম্পাদক ও টাইম টেলিভিশন-এর সিইও আবু তাহের, সাপ্তাহিক পরিচয় সম্পদক নাজমুল আহসান, টাইম টেলিভিশন-এর অন্যতম পরিচালক সৈয়দ ইলিয়াস খসরু, বিশিষ্ট সমাজসেবী আনোয়ার হোসেন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মহসীন ননী, বাহলুল সৈয়দ উজ্জল, কমিউনিটি অ্যাক্টিভিষ্ট ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার, সৈয়দ আল আমীন উপস্থিত থেকে শুভেচ্ছা জানান।
রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন তার বক্তব্যে বিপিএল-এর কলেবর আগামী দিনে আরো বৃদ্ধি পাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, শুধু ক্রিকেট নয়, সম্মিলিতভাবে ব্যাটমিন্টন সহ অন্যান্য খেলাকেও এগিয়ে নিতে হবে। তিনি এবারের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স আপ দল সহ খেলোয়ারদের অভিখনন্দন জানান।
রায়হান জামান বলেন, আমরা আগামী দিনে বিপিএল-কে আরো আকর্ষণীয় ও প্রাণবন্ত করে তুলতে চাই। বিপিএল প্রচারে তিনি টাইম টেলিভিশন ও বাংলা পত্রিকার অবদানের ভূয়ষী প্রশংসা করে বলেন, আগামী দিনেও এই মিডিয়া দুটি অব্যহত সহযোগিতা দেবে বলে প্রত্যাশা করেন।
আবু তাহের বলেন, আমরা বিপিএল-কে আগামী দিনে আন্তর্জাতিক মানের ক্রিকেটের খেলা হিসেবে দেখতে চাই। তিনি বিপিএল-এর সকল প্রচারে টাইম টেলিভিশন ও বাংলা পত্রিকার সার্বিক সহযোগিতা রাখার ঘোষণা দেন।
উল্লেখ্য, এবার নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো নিউইয়র্কে বিপিএল অনুষ্ঠিত হলো। গত বারের মতো এবারো বিপিএল-এর মূল স্পন্সর ছিলো উৎসব ডট কম আর মিডিয়া পার্টসার ছিলো টাইম টেলিভিশন ও বাংলা পত্রিকা।
টাইম টেলিভিশন বিপিএল-এর ফাইনাল, সেমিফাইনাল ও উদ্বোধনী দিনের খেলা সহ একাধিক খেলা সরাসরি সম্প্রচার করে।






একই ধরনের খবর

  • উদ্বোধনী দিনে উৎসব গ্রুপ ও রেন্ডি বি সিগ্যালের মধ্যে প্রীতি ম্যাচ
  • বিপিএল ক্রিকেট আসরের উদ্বোধন ২৯ সেপ্টেম্বর
  • অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন যুব সংঘ
  • ফাইনাল ১ সেপ্টেম্বর ॥ মুখোমুখী যুব সংঘ (বি) ও সোনার বাংলা
  • যুব সংঘ (বি) অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন ব্রঙ্কস ইউনাইটেড রানার্স আপ : টুর্নামেন্টের সেমিফাইনাল ২৫ আগষ্ট
  • ব্রাদার্স ব্রঙ্কস ইউনাইটেড ও যুব (বি)’র পূর্ণ পয়েন্ট লাভ
  • যুব সংঘ সোনার বাংলা ও ব্রাদার্সের জয়লাভ ॥ তাজওয়ারের হ্যাট্রিক
  • Shares