সম্পাদকদের সাথে মেয়র ব্লাজিও’র মতবিনিময়

বিজ্ঞাপন বাজেটের ৫০ ভাগ এথনিক মিডিয়ার জন্য বরাদ্দ

হককথা ডেস্ক: নিউইয়র্ক সিটির মেয়র বিল ডি ব্লাজিউ বলেছেন সিটি থেকে প্রকাশিত মিডিয়াগুলোতে প্রদেয় বিজ্ঞাপন বাজেটের প্রায় ৫০ ভাগ এখন থেকে এথনিক বা কমিউনিটির মিডিয়ার জন্য বরাদ্দ রাখা হবে। এ লক্ষ্যে একটি এক্সিকিউটিভ অর্ডার স্বাক্ষরের কথাও জানিয়েছেন তিনি। গত ২২ মে বুধবার সকালে মেয়রের অফিস সিটি হলের ব্লু হলে এথনিক মিডিয়ার সম্পাদক/প্রকাশকদের সাথে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে তিনি এই কথা জানান মেয়র। মেয়রের এই অর্ডার ২০২০ সালে কার্যকর হবে। উল্লেখ্য, সিটির ইতিহাসে এই প্রথম এথনিক মিডিয়ার বিজ্ঞাপন প্রদান উদ্যোগ নেয়া হলো।
অনুষ্ঠানে মেয়র ব্লাজিও নিউইয়র্ক সিটিকে অভিবাসীদের সিটি হিসেবে পুনরোল্লেখ করে বলেন, বিভিন্ন কমিউনিটির সমন্বয়ে গড়ে উঠা একটি সিটি হিসাবে উল্লেখ করেন এবং বহু কমিউনিটির সমন্বয়ের এই সৌন্দর্য ধরে রাখা এবং একে লালনের উপর গুরুত্ব দেন। অনুষ্ঠানে সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকা’র সম্পাদক এবং টাইম টেলিভিশন-এর সিইও আবু তাহের ছাড়াও বিভিন্ন এথনিক মিডিয়ার সম্পাদক/প্রকাশক ও প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মেয়র অফিসের ইমিগ্র্যান্ট অ্যাফেয়ার্স কমিশনার বিটা মোস্তফি। পরে মেয়র উপস্থিত সম্পাদক ও সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।
অনুষ্ঠানে বাংলা পত্রিকা’র সম্পাদক আবু তাহের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প-এর সম্প্রতি নিউইয়র্ক সিটির বর্তমান মেয়রকে সবচেয়ে ‘অযোগ্য মেয়র’ হিসাবে উল্লেখ করার বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষন করলে মেয়র ব্লাজিও বলেন, তিনি যুক্তরাষ্ট্রের আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট পার্টি থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতার ঘোষণা দেয়ার পর থেকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ভিষণ দুশ্চিন্তায় আছেন। আগামী নির্বাচনে ট্রাম্পের ভবিষ্যত অনিশ্চিত বুঝতে পেরেই এই দুশ্চিন্তা বলে তিনি মন্তব্য করেন। এসময় মেয়র আগমীতে ইমিগ্রান্টদের স্বার্থ সুরক্ষায় আগামীতে তিনি একটি কম্প্রিহেন্সিভ ইমিগ্রান্ট নীতি তৈরীর পরিকল্পনার কথাও জানান।
উল্লেখ্য, ২০১৩ সালে মেয়র বিল ডি ব্লাজিও প্রথমবারের মতো মেয়র হিসেবে দায়িত্ব গ্রহনৈর পর নিউইয়র্ক সিটির কমিউনিটি ও এথনিক মিডিয়ার জন্য বিজ্ঞাপনের বাজেট ৮ লাখ ৫০ হাজার ডলার থেকে বাড়িয়ে ২ দশমিক ৭৪ মিলিয়ন ডলার করা হয়েছে। মেয়রের নতুন নির্বাহী আদেশে তা ৬ মিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যাবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।
সিটি হলে এথনিক মিডিয়ার বিজ্ঞাপন প্রদানের বিষয়ে মেয়রের নির্বাহী আদেশ অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে মেয়র অফিসের মিডিয়া এন্ড এন্টারটেইনমেন্ট কমিশনার এ্যান ডেল ক্যাস্টিলো, ডিপার্টমেন্ট অব সিটিওয়াইড এডমিনিষ্ট্রেটিভ সার্ভিসের কমিশনার লিসেট ক্যামিলো, অপারেশন ডিরেক্টর জেফ থামকিটিক্যাসেম ও ডিরেক্টর হোজে বায়োনা উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের তথ্য মোতাবেক নিউইয়র্ক সিটিতে ইমিগ্র্যান্টের সংখ্যা (অন্য দেশে জন্মগ্রহণকারী) শতকরা ৩৭ ভাগ। আর ২০১৮ সালের তথ্যানুযায়ী ইমিগ্র্যান্টের সংখ্যঅ প্রায় ৩৮ ভাগ। এই ইমিগ্র্যান্টদের মধ্যে অধিকাংশরাই ইংরেজী পত্রিকা পড়েন না। তারা নিজ নিজ কমিউনিটির পত্রিকা পড়েন।(বাংলা পত্রিকা )






একই ধরনের খবর

  • ৯/১১ : কী ঘটেছিল সেদিন
  • নাইন ইলেভেন : সন্ত্রাসী হামলার আতঙ্ক এখনো কাটেনি
  • ভয়াল ৯/১১ বুধবার
  • ‘এ-এইচ ১৬ ড্রিম ফাউন্ডেশন’র স্কুল সাপ্লাই বিতরণ
  • বাংলাদেশ সোসাইটি ভবনে ৮৬ হাজার ডলারের লীন : বাড়ী হাত ছাড়া হওয়ার আশংকা
  • লাগোর্ডিয়া ম্যারিয়ট ফোবানা কনভেনশনে ঐক্যের আহবান : ২০২০ সালের সম্মেলন মন্ট্রিয়ল
  • সাড়ে ৩ লাখ ডলারের বাজেট ঘাটতি: নাউাউ কলোসিয়ামে ফোবানা : দর্শক-শ্রোতাদের উপস্থিতি ছিল কম : যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশীদের নতুন ইতিহাস
  • নিউইয়র্কে গুলি ও গাড়িচাপায় দুই বাংলাদেশী নিহত
  • Shares