ফ্লোরিডায় মর্মান্তিক সড়ক দূঘটনায়

বাংলাদেশী মা-ছেলের মর্মান্তিক মৃত্যু : গুরুতর আহত ২

নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্রের ভাজিনিয়া অঙ্গরাজ্যের আলেকজান্দ্রিয়াস্থ ডাটা গ্রুপের ডিবিএ ইন্সট্রাকটর ও প্রসাশনিক কর্মকর্তা এমদাদুল হকের পরিবার মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনার শিকার হয়েছেন। দূর্ঘটনায় এমদাদুল হক (৩৭) ও তার মামী গুরুতর আহত এবং তার স্ত্রী নাজিয়া হোসেন (৩২) ও একমাত্র পুত্র আয়ান হক(৪) মৃত্যুবরণ করেছেন (ইন্না লিল্লাহি — রাজেউন)। ফ্লোরিডা থেকে কানাডা যাওয়ার পথে ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যে গত ৩ জানুয়ারী মঙ্গলবার ভোররাত দুইটার দিকে এই ঘটনা ঘটে। বছরের শুরুতেই মর্মান্তিক এই নিহতের ঘটনায় কমিউনিটিতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
ডাটা গ্রুপের স্বত্বাধিকারী জাকির হোসাইন এই দূর্ঘটনার কথা নিশ্চিত করেছে ইউএনএ প্রতিনিধির সাথে আলাপকালে জানান এমদাদুল হক ও তার মামীকে ফ্লোরিডার ওরেঞ্জ পার্ক হাসপাতাল সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে। হাসপাতালে তাদের নিবির পরিচর্যায় রয়েছেন।
nazia-ayan-picফ্লোরিডার বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রচারিত খবরের বরাত দিয়ে জাকির হোসাইন ৪ জানুয়ারী বুধবার ফোনে ইউএনএ প্রতিনিধিকে বলেন, ফ্লোরিডায় বেড়ানোর পর এমদাদুল হক তার স্ত্রী-পুত্র ও মামীকে সাথে নিয়ে কানাডায় যাচ্ছিলেন। অপর এক গাড়ীতে তার মামা ছিলেন। এমদাদুল হকের স্ত্রী নাজিয়া হোসেন নিজেই গাড়ী ড্রাইভ করছিলেন। ফ্লোরিডার আই ৯৫ নর্থ হাইওয়ে এই দূর্ঘটনা ঘটে। ধারণা করা হচ্ছে, হাইওয়ে ধরে গাড়ীটি দ্রুত চলার পথে নাজিয়া নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন এবং গাড়ীটি রাস্তা থেকে ছিটকে গিয়ে পার্শবর্তী একটি গাছের সাথে প্রচন্ড ধাক্কা খায়। ফলে ঘটনাস্থলেই মা ও পুত্রের মৃত্যু ঘটে এবং স্বামী ও মামী গুরুতর আহত হন। পরবর্তীতে হেলিকপ্টার যোগে তাদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তিনি বলেন, এমদাদুল হকের জ্ঞান ফিরলেও মামীর জ্ঞান ফিরেনি। বুধবার এমদাদুল হকের সার্জারী হওয়ার কথা।
জাকির হোসাইন জানান, কানাডিয়ান নাগরিক এমদাদুল হক তার পরিবার নিয়ে কানাডার ওন্টারিয়তে বসবাস করেন। ডাটা গ্রুপের কাজে তিনি মাঝে মাঝে ভার্জিনিয়া আসতেন। আর স্ত্রী নাজিয়া হোসেনের দিক থেকে আতœীয় মামা-মামী বাস করতেন ম্যারিল্যান্ড। তারা ফ্লোরিডায় বেড়িয়ে কানাডা যাচ্ছিলেন।
ফ্লোরিডার দূর্ঘটনায় নিহতদের বিদেহী আতœার মাগফেরাত আর আহতদের দ্রুত সুস্থ্যতা কামনায় ভার্জিনিয়াস্থ ডাটা গ্রুপ-এর প্রধান কার্যালয়ে বুধবার (৪ জানুয়ারী) সন্ধ্যায় এক দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।
এমদাদুল হকের স্ত্রী ও পুত্রের নিহতের ঘটনায় ডাটা গ্রুপের স্বত্বাধিকারী জাকির হোসাইন, ভার্জিনিয়ার বর্ণমালা শিক্ষাঙ্গন-এর প্রেসিডেন্ট নাজনীন আখতার ও সাধারণ সম্পাদক সোহানী পারভীন গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেছেন।






একই ধরনের খবর

  • টরন্টোতে বাংলাদেশী একই পরিবারের চারজনের লাশ উদ্ধার
  • ‘সন্তান নাস্তিক’ এই লজ্জা থেকে বাবা মাকে মুক্তি দিতে হত্যা!
  • টরন্টোতে বাবা-মাসহ পরিবারের ৪ সদস্যকে খুন করল বাংলাদেশী যুবক
  • টরন্টোতে বাসা থেকে দম্পতিসহ ৪ বাংলাদেশীর লাশ উদ্ধার
  • যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয় না পেয়ে কানাডায় রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়েছেন সাবেক প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা
  • টরন্টো স্টারে বিচারপতি সিনহার আশ্রয় প্রার্থনা উন্মোচিত
  • হোয়াইট হাউসের সামনে মেট্রো ওয়াশিংটন আ. লীগের প্রতিবাদ : স্মারকলিপি প্রদান
  • আমেরিকা প্রবাসী মজিদ আলী ইতিহাসের কিংবদন্তী
  • Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked as *

    *

    Shares