নিউইয়র্কে রোজায় পার্টি হল ও রেস্টুরেন্টগুলো বুকিং হয়ে যায় আগেই 

বাংলদেশীদের ২৫ মিলিয়ন ডলারের ইফতার বাজার

শাহাব উদ্দিন সাগর: নিউইয়র্ক নগরীতে রমজানে বাংলদেশীদের প্রায় ২৫ মিলিয়ন ডলারের ইফতার বাজার। এক সময় যেখানে এক বা দুই মিলিয়ন ডলারের ইফতার বাজার ছিল সেখানে ২৫ মিলিয়ন ডলারের ইফতার বাজারে সন্তুষ প্রকাশ করেছেন প্রবাসীরা। তারা বলছেন, নিউইয়র্কে বাংলদেশীরা ক্রমবর্ধমান হওয়ার সুফল পড়েছে এখানকার ব্যবসা-বাণিজ্যে। যা রমজান আসলে দৃশ্যমান হয়। কারণ প্রতিদিন বাংলদেশী অধ্যুষিত এলাকার হাজার হাজার মানুষ রেস্টুরেন্ট ও পার্টি হল থেকে কিনে ইফতার করছেন। সন্ধ্যা হলেই নিউইয়র্ক নগরীর বাংলদেশীদের পরিচালনাধীন অন্তত একশো মসজিদে ২০ হাজার এবং রেস্টুরেন্ট ও পার্টি হলগুলোতে আরো ৮ হাজার বাংলদেশী মুসলমানরা ইফতার করছেন। মাথা পিছু ১০ ডলার করে ইফতার হলেও এক দিনে প্রায় ২ লাখ ৮০ হাজার ডলারের ইফতার করছেন মসজিদ, রেস্টুরেন্ট ও পার্টি হলগুলোতে। বাসা বাড়িতে ইফতার করেন অন্তত ৫০ হাজার বাংলদেশী। সেখানে ১০ ডলার করে ইফতার ব্যয় ধরা হলে এর অর্থ দাঁড়ায় ৫ লাখ ডলার বা হাফ অব মিলিয়ন। সবমিলে ধরে নেয়া যায় শুধু বাংলদেশীরাই অন্তত ৮ লাখ ডলার একদিনে ইফতারের পেছনে ব্যয় করেন। মাসে হিসেব করলে সেটি দাঁড়ায় প্রায় ২৪ মিলিয়ন ডলার। উল্লেখ্য, পাকিস্তানী, ইন্দোনিয়া, ইন্ডিয়াসহ অন্য কমিউনিটির ইফতার বাজার ধরলে এর পরিমাণ প্রায় ৫০ মিলিয়ন ডলার হবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে সব কমিউনিটির পরিচালনাধীন মসজিদগুলো ধরলে মসজিদের সংখ্যা দাঁড়াবে প্রায় দুইশ’।

নিউইয়র্কে রোজার সময় ইফতার মসজিদ, রেস্টুরেন্ট ও পার্টি হল কেন্দ্রিক। কয়েক শত সামাজিক সংগঠন রেস্টুরেন্ট ও পার্টি হলে ইফতার আয়োজন করে থাকে। হাজার হাজার মানুষ ইফতার সারেন মসজিদগুলোতে। বাংলদেশীরা নিজেদের পরিচালিনাধীন মসজিদগুলোতেই গিয়ে ইফতার করেন।
এছাড়া প্রথম রোজা থেকে বুকিং থাকে রেস্টুরেন্টের পার্টি হলগুলো। বাংলদেশী মালিকনাধীন রেস্টুরেন্ট ও পার্টি হলগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল জ্যাকসন হাইটসের খাবার বাড়ির রেস্টুরেন্টের খাবার বাড়ি চাইনিজ, পালকি পার্টি সেন্টার, হাট বাজার পার্টি হল, ইত্যাদি পার্টি হল, তিতাস রেস্টুরেন্ট পার্টি হল, টক অব দ্যা টাউন পার্টি হল। জ্যামাইকায় তাজমহল পার্টি হল, স্টার কাবাব পার্টি হল, পানসী পার্টি হল। ব্রঙ্কসে আল আকসা, খলিল বিরায়ানী পার্টি হল। এছাড়া ব্রুকলিনেও রয়েছে বেশ ক’টি পার্টি হল যেখানে রোজায় ইফতারের আয়োজন করা হয়।
এছাড়া স্বতন্ত্র পার্টি হল রয়েছে অনেক। সেগুলোর মধ্যে গুলশান টেরেস, কুইন্স প্যালেস, বেলোজিনোর তিনটি পার্টি হলে বিভিন্ন সংগঠন আয়োজন করে ইফতার।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পার্টি হলগুলো রোজায় প্রায় ৩০ দিনেই বুক থাকে। মসজিদগুলোতেও চাঁদরাত পর্যন্ত আয়োজন করা হয় ইফতারের।
বাংলদেশী অধ্যুাষিত নগরীর বাংলদেশী পরিচালনাধীন প্রায় একশ’ মসজিদে অন্তত ২০ হাজার বাংলদেশী নারী-পুরুষ ইফতার করেন। এসব ইফতারের আয়োজন করা হয় স্থানীয় বাংলদেশী মুসলমানদের সহযোগিতায়। মসজিদগুলোতে ইফতার সরবরাহ করা হয় অধিকাংশ রেস্টুরেন্ট থেকে। ২০ হাজার মানুষের জন্য ১০ ডলার করে হলে ২ লাখ ডলারের ইফতার সরবরাহ করা হয় একদিনে। এছাড়া প্রায় ৪০ টি রেস্টুরেন্ট ও পার্টি হলে অন্তত ৮ হাজার বাংলদেশী ইফতার করেন। সেখানেও ১০ ডলার করে ইফতার হয়ে থাকলে দাঁড়ায় ৮০ হাজার ডলার। আর বাসা বাড়ীতে ৫০ হাজার বাংলদেশীরা ইফতার করলে সেখানেও প্রায় ৫ লাখ ডলার ব্যয় করেন একদিনে। ফলে দেখা যায় এক দিনে ৭ লাখ ৮০ হাজার ডলারের ইফতার। এছাড়া রাস্তা-ঘাটে যারা ইফতার করেন তা সবমিলে ধরলে অন্তত রোজায় ২৫ মিলিয়ন ডলারের ইফতার বাজার বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। এসব ইফতার যেহেতু অধিকাংশ রেস্টুরেন্টগুলো থেকে সরবরাহ করা হয় সেখানে ধরে নেয়া যায় বাংলদেশীরা রোজায় অন্তত ২৫ মিলিয়ন ডলারের ইফতার বাণিজ্য করেন।
খাবার বাড়ি রেস্টুরেন্টের অন্যতম কর্ণধার কামরুল বলেন, রোজায় আমাদের দুটো পার্টি হলে অন্তত ৭০ টি পার্টি আছে। এর মধ্যে কিছু সেহেরি পার্টিরও ব্যবস্থা রয়েছে। প্রতি পার্টিতে ২’শ জন করে হলে অন্তত ৭ হাজার মানুষের ইফতারের আয়োজন করি আমরা।
গুলশান ট্যারেসের একজন কর্ণধার বলেন, আমাদের রোজার প্রায় প্রতিদিনই ইফতার পার্টির ব্যবস্থা আছে। কম করে হলে একশ’ জন আর এবং বেশি হলে তিনশ জনের উপরে একেকটি ইফতার পার্টির আয়োজন থাকে। ফলে ধরে নিতে পারেন প্রায় ৬ থেকে ৭ হাজার মানুষ ইফতার করেন গুলশান ট্যারেসে বিভিন্ন সংগঠন আয়োজিত ইফতার পার্টিতে। (সাপ্তাহিক আজকাল)






একই ধরনের খবর

  • ৯/১১ : কী ঘটেছিল সেদিন
  • নাইন ইলেভেন : সন্ত্রাসী হামলার আতঙ্ক এখনো কাটেনি
  • ভয়াল ৯/১১ বুধবার
  • ‘এ-এইচ ১৬ ড্রিম ফাউন্ডেশন’র স্কুল সাপ্লাই বিতরণ
  • বাংলাদেশ সোসাইটি ভবনে ৮৬ হাজার ডলারের লীন : বাড়ী হাত ছাড়া হওয়ার আশংকা
  • লাগোর্ডিয়া ম্যারিয়ট ফোবানা কনভেনশনে ঐক্যের আহবান : ২০২০ সালের সম্মেলন মন্ট্রিয়ল
  • সাড়ে ৩ লাখ ডলারের বাজেট ঘাটতি: নাউাউ কলোসিয়ামে ফোবানা : দর্শক-শ্রোতাদের উপস্থিতি ছিল কম : যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশীদের নতুন ইতিহাস
  • নিউইয়র্কে গুলি ও গাড়িচাপায় দুই বাংলাদেশী নিহত
  • Shares