প্রবাসী টাঙ্গাইলবাসীদের সভায়

নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সভাপতি ডা. ওয়াজেদ সংবর্ধিত

নিউইয়র্ক (ইউএনএ): যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী টাঙ্গাইলবাসীদের সভায় নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের পুন: নির্বাচিত সভাপতি ও সাপ্তাহিক বাংলাদেশ সম্পাদক ডা. ওয়াজেদ এ খান সংবর্ধিত হয়েছেন। ডা. ওয়াজেদ দ্বিতীয়বারের মতো প্রেসক্লাবের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় তাকে ফুলের তোড়া ও পুরষ্কার দিয়ে সম্মানিত করা হয়। সিটির জ্যামাইকার কাবাব কিং রেষ্টেুরেন্টে গত ২৩ নভেম্বর শনিবার সন্ধ্যায় আয়োজিত এই সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রবাসী টাঙ্গাইলবাসী ইউএসএ ইনক’র সভাপতি খন্দকার বদরুজ্জামান পিকলু। খবর ইউএনএ’র।
সুলতান বোখারীর সঞ্চালনায় অনাড়ম্বর এই সভায় আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সালাহউদ্দিন আহমেদ। এছাড়াও সভায় সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শরীফ শিকদার সহ অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আশিক শামীম, হাজী মোজাম্মেল হক, মোহাম্মদ মোজহারুল ইসলাম খান, ফরিদ খান, সৈয়দ আশরাফ দুলাল, খন্দকার জাকির হোসেন, আব্দুল হাকিম, শাহীনুর রহমান, তৌফিকুর রহমান, সানোয়ার হোসেন, মোহাম্মদ আলম, রাশেদ চৌধুরী তুষার প্রমুখ।
সভায় বক্তারা বলেন, বাংলাদেশের অন্যতম ঐতিহ্যবাহী জেলা টাঙ্গাইল। দেশের ন্যায় প্রবাসেরও টাঙ্গাইলবাসী হিসেবে আমরা গর্বিত। আর গর্বিত টাঙ্গাইল জেলাবাসীদের মধ্যে ডা. ওয়াজেদ এ খান একজন কৃতি ব্যক্তিত্ব। তার মেধা, কর্ম আর ব্যবহার সবাইকে মুগ্ধ করেছে। তিনি পরপর দু’বার প্রেসক্লাবের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় ব্যক্তিগতভাবে তিনি যেমন সম্মনিত হয়েছেন, তেমনী টাঙ্গাইলবাসীদেরও সম্মানিত হয়েছেন। বক্তারা বলেন, একজন পেশাদার চিকিৎসক হয়েও প্রবাসে সাংবাদিকতা তথা সাপ্তাহিক বাংলাদেশ প্রকাশনা তার মাতৃভাষা, মাতৃভুমি বাংলাদেশ আর প্রবাসীদের প্রতি বিশেষ দায়িত্ববোধকেই স্মরণ করিয়ে দেয়।
প্রসঙ্গত বক্তাদের কেউ কেউ টাঙ্গাইলের ঐতিহ্যবাহী মির্জাপুরের কুমুদিনী মহিলা মেডিক্যাল কলেজে শিক্ষার্থী ভর্তির সময় যোগ্যতার ভিত্তিতে টাঙ্গাইলবাসীদের জন্য কোটা নির্ধারণের দাবী জানান এবং প্রবাসী টাঙ্গাইলবাসীদের মধ্যকার সৌহার্দ্য-সম্প্রীতি আরো জোরদার করার উপর গুরুত্বারোপ করেন।
ডা. ওয়াজেদ এ খান তার বক্তব্যে প্রবাসী টাঙ্গাইলবাসীদের এই আয়োজনের জন্য সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, টাঙ্গাইলের সন্তান হিসেবে নিজ জেলাবাসীর জন্য তার সাধ্যমতো কাজ করার চেষ্টা করবেন। উল্লেখ্য, তার নিজ এলাকা মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালের জন্য ২০০৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রের একটি সংস্থার মাধ্যমে জার্মানী ও অষ্ট্রিয়া থেকে কয়েক কোটি টাকার ভারেতশ্বরী মেডিক্যাল কলেজের জন্য পাঠিয়েছেন তিনি। তিনি যার যার অবস্থান থেকে টাঙ্গাইলবাসী তথা দেশেবাসীর জন্য সেবার হাত বাড়িয়ে দেয়ার আহ্বান জানান।






একই ধরনের খবর

  • বাংলাদেশ কনস্যুলেটে ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস পালন
  • অ্যাসেম্বলীওম্যান প্রার্থী মেরী জোবাইদার ফান্ড রেইজিং ২২ ডিসেম্বর
  • প্রজন্মের সাথে বাড়ছে দূরত্ব ॥ বাড়ছে পারিবারিক অশান্তি
  • ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস : নিউইয়র্কে ব্যাপক কর্মসূচী গ্রহণ
  • নারীর ক্ষমতায়নে নারীদেরই অগ্রনী ভূমিকা রাখতে হবে
  • উমরা প্যাকেজ নিয়ে সৌদি আরব ঘুরে এলো বাংলা ট্যুর
  • নিউইয়র্কের পরিচিত মুখ আব্দুল জলিলের ইন্তেকাল
  • বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনায় থ্যাঙ্কস গিভিং ডে উদযাপন : ঘরে ঘরে টার্কি ভোজ পার্টি
  • Shares