নিউইয়র্কের প্রেসনোট : দু’টি সাংবাদিক সম্মেলন ও নিউইয়র্কে বাংলা সংবাদ মাধ্যমের ভূমিকা নিয়ে কমিউনিটিতে নানা প্রশ্ন

নিউইয়র্কে প্রবাসী বাংলাদেশীদের প্রাণকেন্দ্র হিসেবে পরিচিত জ্যাকসন হাইটসের ডিজিটাল ওয়ান ট্রাভেলস কর্তৃক যাত্রীদের সাথে প্রতারণার অভিযোগকে কেন্দ্র করে সাপ্তাহিক পরিচয়-এর রিপোর্ট প্রকাশের পর এই ট্রাভেলস প্রতিষ্ঠান থেকে প্রতারিত হওয়া দুই ভুক্তভোগীর সাংবাদিক সম্মেলনের পর ডিজিটাল ওয়ান ট্রাভেলস-এর আতœপক্ষ সমর্থনে পরবর্তী সাংবাদিক সম্মেলন কমিউনিটিতে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি করেছে। টিকেট নিয়ে ভুক্তভোগীদের সাংবাদিক সম্মেলনের সচিত্র খবরটি এটিএন, এনটিভি, সিনে বাংলা, সাপ্তাহিক পরিচয়-এ প্রচারিত হলেও ডিজিটাল ওয়ান ট্রাভেলস-এর আতœপক্ষ সমর্থনে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনের খবরটি সাপ্তাহিক পরিচয় ছাড়া অন্য কোন মিডিয়ায় প্রকাশিত হয়নি। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সাংবাদিক সম্মেলনের পর ডিজিটাল ওয়ান ট্রাভেলস কর্তৃপক্ষের বিশেষ অনুরোধেই মিডিয়াগুলো তাদের সাংবাদিক সম্মেলনের খবরটি প্রকাশ/প্রচারিত হয়নি! যদিও উক্ত সাংবাদিক সম্মেলনে নিউইয়র্কের প্রায় সবকটি মিডিয়ার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। এনিয়ে নিউইয়র্কের বাংলা মিডিয়া মহল ছাড়াও কমিউনিটির সচেতন পাঠকদের পক্ষ থেকে নানা প্রশ্ন উঠেছে। সাপ্তাহিক পরিচয়-এর অনুসন্ধানে আরো কিছু তথ্য পাওয়া গেছে। জানা গেছে, ডিজিটাল ওয়ান ট্রাভেলস-এর সাংবাদিক সম্মেলনে ভুক্তভোগীদের বিরুদ্ধে এবং প্রতিষ্ঠানটির পক্ষে আতœপক্ষ সমর্থণ করতে গিয়ে উপস্থিত সাংবাদিকদের মধ্যে এমিরেট এয়ারলাইন্সের একটি ‘ভুয়া ডকুমেন্ট’ বিলি করা হয়েছে। যা পরিচয়-এর গত সংখ্যায় প্রধান শিরোনামের খবরে বিস্তারিত তুলে ধরা হয়েছে। এমিরাট এয়ারলাইন্সের এই ‘ভুয়া ডকুমেন্ট’ সাংবাদিকদের কাছে উপস্থাপন করার পর তা জানাজানি হওয়ার ভয়ে ডিজিটাল ওয়ান ট্রাভেলস-এর পক্ষ থেকে সাংবাদিক সম্মেলনের খবরটি প্রকাশ/প্রচার করতে বারন করা হয়েছিল। খবরটি ‘কিল্ড’ করায় কমিউনিটির মিডিয়াগুলোর সাংবাদিকতা বিষয়ে নানা প্রশ্ন উঠেছে। একদিকে যাত্রীদের পক্স থেকে প্রতারণার অভিযোগ অপরদিকে ডিজিটাল ওয়ান ট্রাভেলস-এর পক্ষ থেকে সাংবাদিক সম্মেলনে এমিরেট-এর ‘ভুয়া ডকুমেন্ট’ প্রদর্শণের পরও তা খবর হওয়ার যোগ্যতা কেন অর্জন করে না এই প্রশ্নও তুলেছেন অনেকে। ডিজিটার ওয়ান ট্রাভেলস-এর অন্যতম স্বত্তাধিকারী জাকারিয়া মাসুদ জিকো একই সাথে সাপ্তাহিক আজকাল-এরও প্রধান সম্পাদক (তার প্রধান সম্পাদক হওয়ার এবং শিক্ষাগত ও সাংবাদিকতার যোগ্যতা নিয়েও রয়েছে প্রশ্ন)। তাছাড়া একটি পত্রিকায় কয়জন সম্পাদক থাকলে একজন প্রধান সম্পাদক হতে পারেন তা নিয়েও অনেকের প্রশ্ন। উল্লেখ্য, জিকো ও তার সহোদর বেলাল এবং বাংলাদেশ বিমানের সাবেক এক কর্মচারী ঐ সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু সাপ্তাহিক আজকাল-এও সাংবাদিক সম্মেলন বিষয়ে কোন খবর প্রকাশিত না হওয়ায় কমিউনিটিতে বিষয়টি আরো আলোচিত হচ্ছে। প্রশ্ন উঠেছে তাহলে কি জাকারিয়া মাসুদ জিকোর অন্যান্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের অনিয়ম ঢেকে রাখার জন্য সাপ্তাহিক আজকাল প্রকাশ করেছেন, বা প্রধান সম্পাদক (!) হিসেবে বিষয়গুলো ধামাচাপা দেয়ার জন্য সাংবাদিকতাকে অ¯্র হিসেবে ব্যবহার করছেন? এব্যাপারে নিউইয়র্কের পেশাদার সাংবাদিক ও সম্পাদকদের ভাববার অবকাশ রয়েছে।
এদিকে টাইম টেলিভিশনে ডিজিটাল ওয়ান ট্রাভেলস-এর সাংবাদিক সম্মেলনের খবর প্রচারিত হয়নি বলে পরিচয়কে জানিয়েছেন টাইম টিভি’র সাথে সংশ্লিষ্ট সৈয়দ ইলিয়াস খসরু এবং টাইম টিভির সিইও আবু তাহের। গত সপ্তাহের সাপ্তাহিক পরিচয়-এর প্রকাশিত নিউইয়র্কের প্রেসনোট-এ ডিজিটাল ওয়ান ট্রাভেলস কর্তৃক প্রতারিত যাত্রীদের সাংবাদিক সম্মেলনের খবর এটিএন বাংলা, এনটিবি, সিনে বাংলা-তে প্রচারিত এবং ট্রাভেলস প্রতিষ্ঠানটির সাংবাদিক সম্মেলনের খবর টাইম টেলিভিশনে প্রচারিত হয় বলে উল্লেখ করা হয়েছিলো। যদিও ডিজিটাল ওয়ান ট্রাভেলস কর্তৃক আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে টাইম টেলিভিশন-এর ক্যামেরা ক্রু ও সাংবাদিক উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, কিছু দিন পূর্বে বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সভাপতি এম আজিজ জ্যাকসন হাইটসে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে সাপ্তাহিক পরিচয়-এর বিরুদ্ধে ৫টি মামলা করার হুমকী দিয়েছিলেন সেই খবরটি সাপ্তাহিক ঠিকানা ও সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকা সহ নিউইয়র্কের প্রায় সবকটি পত্রিকায় ফলাও করে প্রচার করা হয়েছিলো।
২.
নিউইয়র্কে বাংলা প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার পাশাপাশি বাংলাদেশী একাধিক বার্তা সংস্থা নানা খবরাখবর প্রকাশ করে কমিউনিটির কল্যাণের পাশাপাশি প্রবাসের সাংবাদিকতায় ভূমিকা রাখছে। সঙ্গত কারণেই এইসব বার্তা সংস্থার খবর শুধু প্রবাসের মিডিয়াগুলোই নয়, কোন কোন খবর বাংলাদেশের মিডিয়াগুলোতেও গুরুত্বের সাথে প্রকাশিত হচ্ছে। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য যে, দেশে ও প্রবাসের অনেক মিডিয়াই এইসব বার্তা সংস্থাগুলোর খবর প্রকাশের সময় সংশ্লিষ্ট মিডিয়ার ‘ক্রেডিট’ দিচ্ছে না। এ কেমন কাপর্ণ্যতা! এ কেমন অকৃতজ্ঞতা! এই সপ্তাহে দেখা গেলো সাপ্তাহিক ঠিকানা’র মতো প্রতিষ্ঠিত ও দায়িত্বশীল মিডিয়াতে বার্তা সংস্থা ইউনাইটেড নিউজ অব আমেরিকা (ইউএনএ) পরিবেশিত একাধিক খবর-এ (যা অন্য মিডিয়াতেও ইউএনএ’র বরাতে প্রকাশিত) ইউএনএ’র ক্রেডিট নেই। এমনি দেখা গেছে সাপ্তাহিক দেশবাংলা পত্রিকায়ও। অথচ দেখা যায় বিশ্বের শীর্ষ স্থানীয় ও প্রভাবশালী নিউইয়র্ক টাইমস-এর মতো পত্রিকায় তাদের নিজস্ব প্রতিনিধির খবরের পাশাপাশি প্রয়োজনে আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থাগুলোর ক্রেডিট দিয়েই খবর পরিবেশন করে। মর্যাদাপূর্ণ আর দায়িত্বশীল সাংবাদিকতার জন্যই এই বিষয়টিও সংশ্লিষ্ট মিডিয়াগুলোর সম্পাদনা বিভাগকে ভেবে দেখা দরকার।
৩.
চলতি সপ্তাহে নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত উল্লেখযোগ্য পত্র-পত্রিকার মধ্যে সাপ্তাহিক পরিচয়-এর প্রকাশিত ‘যাত্রীদের সাথে প্রতারণার অভিযোগে অভিযুক্ত জ্যকসন হাইটস এর ডিজিটাল ওয়ান ট্রাভেলস এর জালিয়াতি ফাঁস’, সাপ্তাহিক ঠিকানা’র ‘নিউইয়র্কে চালকবিহীন ৫০০০ ট্যাক্সি’ শীর্ষক খবর সহ বিভিন্ন মিডিয়ায় বার্তা সংস্থা ইউএনএ পরিবেশিত ‘নিউইয়র্কের মুক্তিযোদ্ধা সমাচার’ বিষয়ক খবর পাঠক মহলে আলোচিত হয়েছে। ১৭ এপ্রিল’২০১৫ (সাপ্তাহিক পরিচয়)






একই ধরনের খবর

  • নবযুগ প্রকাশিত হচ্ছে ১০ জানুয়ারী শুক্রবার
  • নিউইয়র্কে এটিভি’র লোগো উন্মোচন
  • নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের নব নির্বাচিত কমিটির অভিষেক : পেশাদারিত্ব বজায় রাখার অঙ্গীকার
  • নতুন কমিটির অভিষেক ২৮ ডিসেম্বর
  • জামাত মুখপত্রের দফতরে ভাঙচুর
  • দৈনিক সংগ্রামে ডিএফপি’র নোটিশ
  • সংগ্রাম কার্যালয়ে ভাঙচুর, সম্পাদক থানা হেফাজতে
  • আক্রান্ত দৈনিক সংগ্রাম : সম্পাদক আবুল আসাদ পুলিশ হেফাজতে
  • Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked as *

    *

    Shares