নার্গিস আহমেদের এএআরপি’র ‘কমিউনিটি হিরো অ্যাওয়ার্ড’ লাভ

হককথা রিপোর্ট: নিউইয়র্ক তথা উত্তর আমেরিকায় প্রবাসী বাংলাদেশী কমিউনিটির অতি পরিচিত আর প্রিয় মুখ নার্গিস আহমেদ। শুধু কমিউনিটি নয়, সামাজিক সংগঠন নয়, আমেরিকার মূলধারার রাজনীতিতেও যার অবস্থান অন্যতম। সামাজিক কর্মকান্ডের কারণে তিনি ইতিমধ্যেই একাধিক অ্যাওয়ার্ড/সম্মাননা পেয়েছেন। এবার পেলেন এশিয়ান আমেরিকান এন্ড প্যাসেফিক আইল্যান্ডার (এএআরপি) ‘কমিউনিটি হিরো অ্যাওয়ার্ড’। গত বছর তিনি এই অ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনীত হন।
এএআরপি ‘কমিউনিটি হিরো অ্যাওয়ার্ড’ গ্রহণ উপলক্ষ্যে গত ২৪ জানুয়ারী বুধবার এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে এএআরপি’র মাল্টি কালচারাল এফেয়ার্সের ভাইস প্রেসিডেন্ট ড্যাফলে কোক নার্গিস আহমেদের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে অ্যাওয়ার্ডটি তুলে দেন।
যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশীদের সর্ববৃহৎ সামাজিক সংগঠন, কমিউনিটির আমব্রেলা সংগঠন বা প্রবাসে বাংলাদেশের ‘মিনি পার্লামেন্ট’ হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশ সোসাইটি ইনক থেকে শুরু করে ফোবানা (ফেডারেশন অব বাংলাদেশী এসোসিয়েশন ইন নর্থ আমেরিকা), নাট্য সংগঠন ড্রামা সার্কেল, মূলধারার সংগঠন বাংলাদেশী-আমেরিকান পাবলিক অ্যাফেয়ার্স ফ্রন্ট (বাপাফ), জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটি প্রভৃতি শীর্ষ স্থানীয় সংগঠনের সফল নেতৃত্বদানকারী নার্গিস আহমেদ কুমিল্লার সন্তান। ছিলেন বাংলাদেশ সোসাইটির নির্বাচিত প্রথম ও একমাত্র নারী সভাপতি, ফোবানার শীর্ষ স্থানীয় নেতা, ড্রামা সার্কেল-এর প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক সভাপতি, বাপাফ-এর সাবেক সভাপতি আর বর্তমানে জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটির অন্যতম উপদেষ্টা। বর্তমানে তিনি জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারে পরিচালিত ইন্ডিয়া হোমস দেশী সিনিয়র সেন্টারের পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।
রেজিষ্টার্ড ডেমোক্র্যাট নার্গিস আহমেদ উল্লেখিত সংগঠনের বাইরেও মূলধারার রাজনীতির পাশাপাশি দীর্ঘদিন ধরে কুইন্স কমিউনিটি বোর্ডেরও একজন সক্রিয় সদস্য। নিউইয়র্ক সিটির স্থানীয় সরকার নির্বাচন আর ষ্টেট প্রশাসন থেকে শুরু করে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনেও যার সরব অবস্থান। স্থানীয় সিটি কাউন্সিলম্যান ররি ল্যান্সম্যান থেকে শুরু করে নিউইয়র্ক সিটির মেয়র নির্বাচনের প্রার্থী ও সিটির সাবেক কম্পট্রোলার এবং সাবেক কাউন্সিলম্যান জন ল্যু, সাবেক সিটি কাউন্সিলম্যান জিম জিনারো, ষ্টেট আসেম্বলীম্যান ডেভিট ওয়েপ্রীন প্রমুখ জনপ্রতিনিধিদের কর্তৃক সম্মানিত নার্গিস আহমেদ।
প্রবাসে বাংলা ভাষা আর বাঙলা সংস্কৃতির বিকাশ সহ লালন পালন ছাড়াও অমর একুশে মহান শহীদ দিবস তথা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস, মহান স্বাধীনতা দিবস, মহান বিজয় দিবস, বাংলা নববর্ষ পহেলা বৈশাখ সহ আমেরিকান থ্যাংকস গিভিং ডে পালনেও যার বিশেষ সুনাম তার।
নিউইয়র্ক সিটির কুইন্স বরোর বাংলাদেশী অধ্যুষিত জ্যামাইকায় বসবাসকারী স্বামী ফার্মাসিস্ট মোস্তাক আহমেদ আর দুই কন্যা নিয়ে নার্গিস আহমেদের সুখের সংসার।






একই ধরনের খবর

  • এ্যাপস ভিত্তিক গাড়ির রেজিস্টেশন আগামী এক বছর বন্ধ ॥ ক্যাবীদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া : সিটিতে পার্কিং মিটার রেট ঘন্টায় সর্বোচ্চ ২ থেকে ৪ ডলার পর্যন্ত বাড়ানোর সিদ্ধান্ত
  • বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় এলামানাই এসোসিয়েশনের পিকনিক অনুষ্ঠিত
  • নিউইয়র্কে বাসাবাড়ীতে টবে দেশীয় সবজির বাগান
  • নতুন গান গাইবেন বাদশা বুলবুল ও এস আই টুটুল
  • ফোবানা সম্মেলন-২০১৯ এর প্রস্তুতি শুরু
  • অসহায় অবস্থা আয়োজকদের ॥ লজ্জায় অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করছেন বিশিষ্টজনরা : বাঙালীদের অনুষ্ঠানে টাকার দাপট : স্পন্সররাই নির্বাচন করেন শিল্পী, মিউজিশিয়ান, উপস্থাপক, প্রধান অতিথি
  • ঈদের আমেজে জ্যামাইকা মেলা ১৯ আগষ্ট রোববার
  • নিউইয়র্কে বিয়ানীবাজার পঞ্চখন্ড উচ্চ বিদ্যালয়ের শতবার্ষিকী পালন
  • Shares