পম্পেওর সাথে বৈঠক ৮ এপ্রিল

ড. মোমেন নিউইয়র্কে আসছেন না

হককথা ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পম্পেওর আমন্ত্রণে আমেরিকা সফরে আসছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে এ মোমেন। আগামী ৮ এবং ৯ এপ্রিল ট্রাম্প প্রশাসনের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গের সাথে দ্বি-পাক্ষিক বৈঠকে মিলিত হবেন দেশের নয়া পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন। তিনি প্রথমবারের মতো এমপি ও মন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পর এই প্রথম যুক্তরাষ্ট্র সফরে আসছেন। উল্লেখ্য, গত বছরের ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনের পর গঠিত সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে এটাই প্রথম যুক্তরাষ্ট্র সফর।
কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, স্টেট ডিপার্টমেন্টে বৈঠকের তারিখ এগিয়ে আসায় নাগরিক সংবর্ধনার তারিখেও পরিবর্তন হতে পারে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ ছাড়াও বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন, জালালাবাদ এসোসিয়েশন প্রভৃতি সংগঠনের পক্ষ থেকেও ড. মোমেনকে সংবর্ধিত করার চিন্তাভানা চলছে বলে জানা গেছে। তবে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন এবারের যুক্তরাষ্ট্র সফরকালীন সময়ে নিইউয়র্ক আসছেন না।
সূত্র মতে, পম্পেও ও ড. মোমেনের মধ্যকার আলোচনায় বাংলাদেশের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের বিদ্যমান সম্পর্কে নয়া দিগন্তের সূচনা ঘটবে আশা প্রকাশ করা হয়। ভৌগলিক এবং অন্যান্য কারণে বাংলাদেশের গুরুত্ব বাড়ায় ইউএসএ শাসন বিদ্যমান সম্পর্ককে আরো মজবুত করতে আগ্রহী।
জানা গেছে, বৈঠকে জিএসপি পুনর্বহাল, বঙ্গবন্ধুর ঘাতক এবং একাত্তরের ঘাতক হিসেবে দন্ডিতদের দ্রুত বাংলাদেশে ফিরিয়ে নেয়া, রোহিঙ্গা ইস্যুও স্থায়ী নিস্পত্তিতে যুক্তরাষ্ট্রকে জোরদার ভূমিকায় অবতীর্ণ হবার বিষয়ে আলোচনা হবে। এছাড়াও এসময় জাতীয়, আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ নির্মূল বিষয়ে কথাও হতে পারে বলে একাধিক সূত্রে বলা হয়েছে।
এদিকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সভাপতি ড. মোমেন-এর যুক্তরাষ্ট্র আগমন উপলক্ষে বিভিন্ন সাজিক ও সাংস্কৃতিক তাকে সংবর্ধিত করার উদ্যোগ নিলেও শেষ পর্যস্ত তা ভেস্তে যেতে চলেছে। এরমধ্যে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন, যুক্তরাষ্ট্র অন্যতম। সূত্র মতে, আগামী ৮ এপ্রিল এই সংবর্ধনা হবার কথা। দুই কমিটির নামে স্থানীয় বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনে চলছে ক্ষমতার লড়াই। কিন্তু স্টেট ডিপার্টমেন্টে বৈঠকের তারিখ ১০ এপ্রিল থেকে ৮ এপ্রিলে এগিয়ে আসায় নাগরিক সংবর্ধনার তারিখেও পরিবর্তন হতে পারে বলে জানা গেছে।
বিভিন্ন সূত্রে পাওয়া খবরে জানা একদিকে সময় স্বল্পতা, অন্য দিকে ফাউন্ডেশনের দুই গ্রুপ। আবার স্টেট ডিপার্টমেন্টের তারিখ পরিবর্তন। সব মিলিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিউইয়র্কে যাত্রা বিরতি না করার সম্ভাবনাই বেশী। ফলে তার সম্মানে আয়োজিত সংবর্ধনা আপাতত: হচ্ছে না বলে মন্ত্রীর একাধিক ঘনিষ্টজন এমন আভাষ দিয়েছেন।
এব্যাপারে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন যুক্তরাষ্ট্রের সভাপতি দুরুদ মিয়া রনেল জানান, আমরা শুনেছি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেনের সাথে ষ্টেট ডিপার্টমেন্টের বৈঠকের তারিখ পরিবর্তিত হয়েছে। ফলে সময় স্বলপতার কারণে এবার তাকে সংবর্ধিত করা না গেলেও আগামী দিনে তাকে রনেল-রাষেদ এর নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের উদোগে পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে সংবর্ধিত করা হবে। তারপরও এবারো আমরা আশাবাদী।
উল্লেখ্য, দীর্ঘ প্রবাস জীবনে ড. মোমেন জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। জাতিসংঘে দীর্ঘ ৬ বছর দায়িত্ব পালনকালে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশকে অনন্য এক উচ্চতায় নিয়ে যেতে সক্ষম হন ড. মোমেন। এছাড়াও তিনি দীর্ঘদিন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ছিলেন। (বাংলা পত্রিকা )






একই ধরনের খবর

  • বাংলাদেশী মুসলিমকে বাড়ি ভাড়া না দেয়ায় ৫ কোটি টাকা জরিমানা
  • দক্ষিণ আফ্রিকায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে টাঙ্গাইলের ব্যবসায়ী নিহত
  • উত্তরবঙ্গের উন্নয়ন হলে, বাংলাদেশের উন্নয়ন হবে : বাদশা
  • ফ্লোরিডা দু’দিনব্যাপী এশিয়ান ফুড ট্রেড এন্ড কালচারাল শো অনুষ্ঠিত
  • ফ্লোরিডায় এশিয়ান ট্রেড, ফুড ফেয়ার শুরু হচ্ছে শনিবার
  • ৯ বছরেই কলেজে ভর্তি হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশী ক্ষুদের চমক!
  • ওয়াশিংটনে পিঠা উৎসব : মঞ্চ মাতালেন শিল্পী হৃদয় খান ও সায়েরা
  • Shares