বাংলাদেশ সোসাইটির ৭ সদস্যের ইসি গঠিত

জামাল আহমেদ জনি প্রধান নির্বাচন কমিশনার

নিউইয়র্ক (ইউএনএ): বাংলাদেশ সোসাইটি ইনক নিউইয়র্ক-এর আসন্ন নির্বাচন পরিচালনার জন্য নতুন নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠন করা হয়েছে। গত ৮ এপ্রিল রোববার সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত সোসাইটির কার্যকরী পরিষদের মাসিক সভায় ৭ সদস্য বিশিষ্ট নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়। কমিশনের প্রধান মনোনীত হয়েছেন কমিউনিটির পরিচিত মুখ ও সোসাইটির ট্রাষ্টি বোর্ডের অন্যতম সদস্য এডভোকেট জামাল আহমেদ জনি।
সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমেদের সভাপতিত্বে সোসাইটি কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভাটি পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমীন সিদ্দিকী। সভায় পহেলা বৈশাখ উদযাপন, পবিত্র রমজান মাসে ইফতার পার্টির আয়োজন ও সদস্য সংগ্রহ অভিযান সব বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে সভা সূত্রে জানা গেছে। খবর ইউএনএ’র।
সূত্র মতে, ইসি’র প্রধান নির্বাচন কমিশনার পদের জন্য এডভোকেট জামাল আহমেদ জনি ও ওয়াসী চৌধুরীর নাম প্রস্তাবিত হলে ১১ ভোটে এডভোকেট জনির নাম পাশ হয়। অপরদিকে ৬জন কমিশনার পদের বিপরীতে ১১ জনের নাম প্রস্তাবিত হয়। এরা হলেন এডভোকেট আজিজুর রহমান, আব্দুল হাকিম মিয়া, মহিউদ্দিন দেওয়ান, রুহুল আমীন সরকার, খোকন আশরাফ, আনোয়ার হোসেন, মো. কে ভূইয়া, শিবলী নোমানী কাউছারুস জামান কয়েস, মোহাম্মদ আতাউর রহমান ও জামান তপন।
উল্লেখিতদের মধ্যে সভার ভোটাভুটিতে নির্বাচন কমিশনার পদে আব্দুল হাকিম মিয়া, আনোয়ার হোসেন, কাউছারুস জামান কয়েছ, মহিউদ্দিন দেওয়ান, মোহাম্মদ সরকার, খোকন মুশারফ নির্বাচিত হন।
সোসাইটির সভার শেষ পর্যায়ে নিউইয়র্কের কংগ্রেশন্যাল প্রার্থী ডিষ্ট্রিক্ট-৫ থেকে ডেমোক্র্যাট দলীয় প্রাইমারী প্রার্থী মিজান চৌধুরী সোসাইটির কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করেন।
এদিকে সোসাইটির আগামী নির্বাচন ঘিরে ক্রমশ: সক্রিয় হয়ে উঠছেন সম্ভাব্য প্রার্থী সহ সংশ্লিষ্টরা। সোসাইটির পক্ষ থেকে সদস্য/ভোটার অভিযান অব্যাহত থাকলেও সম্ভাব্য একাদিক প্রার্থীরাও ব্যক্তিগত উদ্যোগে সোসাইটির সদস্য/ভোটার তৈরী করছেন। অনেকে নিজেই অর্থ দিয়ে (জনপ্রতি ২০ ডলার) সদস্য/ভোটার তৈরী করছেন। এই কাজে তারা বন্ধু-বান্ধব সহ নিকট আতœীয়-স্বজন ও ঘনিষ্ট পরিচিতজনকে অগ্রাধিকার দিচ্ছেন। যাতে ভোট নষ্ট না হয়। এই সদস্যগুলো ‘ভোট ব্যাংক’ হিসেবে গণ্য হবে বলে অভিজ্ঞমহল মত প্রকাশ করেছেন।
সোসাইটির আসন্ন নির্বাচনে সভাপতি পদের সম্ভাব্য প্রার্থীর মধ্যে রয়েছেন- সোসাইটির বর্তমান সিনিয়র সহ সভাপতি আব্দুর রহীম হাওলাদার ও সহ সভাপতি আব্দুল খালেক খায়ের। এর বাইরেও সভাপতি পদের প্রার্থী হিসেবে বাংলাদেশ বিয়ানীবাজার সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সমিতি ইউএসএ’র সাবেক সভাপতি এবং সিলেট গণদাবী পরিষদ ইউএসএ’র সভাপতি আজিমুর রহমান বুরহান ও কমিউনিটি অ্যাক্টিভিষ্ট কাজী আশরাফ হোসেন নয়নের নাম শুনা যাচ্ছে। অপরদিকে সাধারণ সম্পাদক পদের সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে সোসাইটির বর্তমান সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমীন সিদ্দিকী পুনরায় প্রার্থী হতে পারেন। এছাড়াও সোসাইটির কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী আগামী নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হতে পারেন বলে জনশ্রুতি রয়েছে। এর বাইরেও সোসাইটির কার্যকরী পরিষদের সাবেক সদস্য ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সানি মোল্লার নাম শুনা যাচ্ছে।
জানা গেছে, উল্লেখিত প্রার্থীদের মধ্যে আব্দুর রহীম হাওলাদার আর রুহুল আমীন সিদ্দিকী মুন্সীগঞ্জ-বিক্রমপুরের সন্তান, আব্দুল খালেক খায়ের নোয়াখালী, আজিমুর রহমান বুরহান সিলেট, কাজী আশরাফ হোসেন নয়ন চট্টগ্রাম এবং মোহাম্মদ আলী ও সানি মোল্লা নরসিংদীর সন্তান। আরো জানা গেছে, সোসাইটির আগামী নির্বাচনে দু’টি প্যানেল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
এদিকে সোসাইটির এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়: বাংলাদেশ সোসাইটির কার্যকরী কমিটির মাসিক সভায় অন্যানন্যের মধ্য উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুর রহিম হাওলাদার, সহ-সভাপতি আব্দুল খালেক খায়ের, কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম ভুইয়া, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মনিকা রায়, প্রচার ও গণসংযোগ সম্পাদক রিজু মোহাম্মদ, সমাজকল্যাণ সম্পাদক নাদির এ আইয়ুব, সাহিত্য সম্পাদক নাসির উদ্দিন, ক্রীড়া ও আপ্যায়ন সম্পাদক মো. নওশেদ হোসেন, স্কুল ও শিক্ষা সম্পাদক আহসান হাবিব, কার্যকরী সদস্য ফারহানা চৌধুরী, মাইনুল উদ্দিন মাহবুব, আজাদ বাকির, সাদী মিন্টু, ও সরোয়ার খান বাবু।
সভায় আগামী ২০১৯-২০২০ সালের নিবাচন পরিচালনার জন্য ৭সদস্য বিশিষ্ট একটি নিবাচন কমিশন গঠন করা হয় এতে প্রধান নির্বাচন কমিশনার এডভোকেট জামাল আহমেদ জনি, নির্বাচন কমিশনার আব্দুল হাকিম মিয়া, আনোয়ার হোসেন, কাউছারুস জামান কয়েছ, মহিউদ্দিন দেওয়ান, মোহাম্মদ সরকার, খোকন মুশারফ কে নিবাচিত করা হয়। গঠিত নির্বাচন কমিশন সংবিধান অনুযায়ী একটি অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নিবাচন উপহার দেবে বলে আশা করা হয়।
সভায় বিভিন্ন সিদ্ধান্তর মধ্য পহেলা বৈশাখ আগামী ৫ মে সোসাইটির অফিসে উদযাপন করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এজন্য ফারহানা চৌধুরীকে আহবায়ক, সারোয়ার খান বাবুকে সদস্য সচিব এবং আবুল কালাম ভুইয়াকে সম্বময়নকারী করে বৈশাখ উদযাপন কমিটি গঠন করা হয়। অনুষ্ঠান সফল করতে সকলের সহযোগিতা কামনা করা হয়।
এদিকে পবিত্র রমজান উপলক্ষে আগামী ২৭ নিইউয়র্কের উডসাইডস্থ জয়া হলে শিশু-কিশোরদের ক্বিরাত প্রতিযোগিতা ও ইফতার মাহফিল আয়োজন করা হয়েছে। ক্বিরাত প্রতিযোগিতা গতবারের মত এবারও সহযোগিতা করবে আই-টিভি ইউএসএ।
সভায় আগামী সপ্তাহ থেকে সোসাইটির সদস্য সংগ্রহ অভিযান জোদার করার উপরও গুরুত্বারোপ করা হয়। বাংলাদেশী অধ্যুষিত বিভিন্ন এলাকায় সভাপতি কামাল আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমীন সিদ্দিকী ও সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম ভুইয়া’র নেতৃত্বে সদস্য সংগ্রহ অভিযান পরিচালিত হবে।






একই ধরনের খবর

  • নিউইয়র্কে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানমালার আয়োজন : প্রাণের উচ্ছ্বাসে প্রবাসীদের বাংলা বর্ষবরণ
  • নিউইর্য়ক আবৃত্তি উৎসব-২০১৮ : প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত
  • ট্রাম্প প্রশাসনের অভিবাসন বিরোধী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে স্ট্যান্ড নিতে হবে
  • জ্যামাইকা-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটির বৈশাখী মেলা ২৮ এপ্রিল শনিবার
  • নিউইয়র্কে পহেলা বৈশাখের প্রস্তুতি ॥ ইলিশের ব্যাপক চাহিদা!
  • জ্যামাইকায় বরো প্রেসিডেন্ট মেলিন্ডা ক্যাটজ : বাংলাদেশী-আমেরিকান সহ সকল দেশের ইমিগ্র্যান্টদের পাশে থাকার অঙ্গীকার
  • নিউইয়র্ক সিটি পুলিশের বিরুদ্ধে কোর্টে রায়: মিলিয়ন ডলারের ক্ষতিপূরণ : মুসলিম গোয়েন্দাবৃত্তি অবৈধ ঘোষণা
  • Shares