কিংবদন্তী সঙ্গীতশিল্পী শাহনাজ রহমতুল্লাহ আর নেই

হককথা ডেস্ক: বাংলাদেশের প্রখ্যাত কণ্ঠশিল্পী শাহনাজ রহমতুল্লাহ আর নেই (ইন্নানিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। শনিবার (২৩ মার্চ) দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ঢাকায় নিজ বাসায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন। সঙ্গীতশিল্পী শফিক তুহিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, শনিবার রাতে হঠাৎ করে তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হন। এরপর তাকে আর হাসপাতালে নেয়ার সুযোগ হয়নি। বাসাতেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

শিল্পী শাহনাজ রহমতুল্লাহর পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, বেশ কয়েকদিন ধরে তিনি শ্বাস কষ্টে ভুগছিলেন। ১৯৫২ সালে জন্ম নেন এই শিল্পী। মাত্র ১১ বছর বয়সে ১৯৬৩ সালে রেডিও এবং চলচ্চিত্রের গানে যাত্রা শুরু করেন তিনি। ১৯৬৪ সালে টেলিভিশনে প্রথম গান করেন। পাকিস্তানে থাকার সুবাদে করাচি টিভিসহ উর্দু ছবিতেও গান করেছেন। গান শিখেছেন গজল সম্রাট মেহেদী হাসানের কাছে।
শাহনাজ রহমত উল্লাহর স্বামী মেজর (অব.) আবুল বাশার রহমত উল্লাহ ব্যবসায়ী, ছেলে এ কে এম সায়েফ রহমত উল্লাহ কানাডায় থাকেন, মেয়ে নাহিদ রহমত উল্লাহ থাকেন লন্ডনে।
‘এক নদী রক্ত পেরিয়ে’, ‘জয় বাংলা বাংলার জয়’, ‘একবার যেতে দে না আমার ছোট্ট সোনার গাঁয়’, ‘একতারা তুই দেশের কথা বলরে এবার বল’, ‘প্রথম বাংলাদেশ আমার শেষ বাংলাদেশ’সহ অসংখ্য কালজয়ী গান গেয়েছেন তিনি। শাহনাজ রহমত উল্লাহ ১৯৯০ সালে ‘ছুটির ফাঁদে’ ছবিতে গান গেয়ে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান। ১৯৯২ সালে পান একুশে পদক। ‘চ্যানেল আই মিউজিক অ্যাওয়ার্ড’ এর সৌজন্যে তিনি পেয়েছেন আজীবন সম্মাননা। এ ছাড়া গান গেয়ে অসংখ্য পুরস্কার পেয়েছেন গুণী এই শিল্পী।






একই ধরনের খবর

  • ছাত্রলীগের নেতৃত্বে জয়-লেখক
  • ছাত্রলীগের পদ হারালেন শোভন-রাব্বানী
  • লুইজিয়ানায় বাংলাদেশী শিক্ষার্থীকে গুলি করে হত্যা
  • বর্ণাঢ্য আয়োজনে নিউইয়র্কের নাসাও কলিসিয়ামে শুরু হলো তিনদিন ব্যাপী ফোবানা সম্মেলন
  • ঐক্যবদ্ধ ফোবানা আর বাংলাদেশী কমিউনিটির প্রত্যয়ে লাগোর্ডিয়া মারিয়ট হোটেলে শুরু হলো তিন দিনব্যাপী ফোবানা কনভেনশন
  • সাত যুক্তিতে মিন্নির জামিন হাইকোর্টে
  • বাংলাখবর ডট নেট-এর আড্ডায় নাজমুন নাহার : ভ্রমণে ভিসা নয়, আমি গুরুত্ব দেই লাল-সবুজের পতাকাকে
  • ভুলের জালে বিএনপি
  • Shares